(প্রিয়.কম) জীবন ক্ষুদ্র নয়। একটি জীবনের ভেতর লুকিয়ে থাকে বিপুল সম্ভাবনার বীজ। আমরা আগে থেকেই বলতে পারি না এর পরিণতি কী হবে! আমরা সকলেই একসময় শিশু ছিলাম। অধিকাংশ মানুষের মুখে শোনা যায় শৈশব কাটে আনন্দে আর দুরন্তপনায়। কিন্তু আমাদের আশেপাশেই এমন অনেক শিশু আছে যাদের কাছে জীবন মানেই প্রতিবন্ধকতা।

এমনই এক শিশু অ্যান্থনি। সে জন্মগতভাবে সে প্যারালাইজড। প্রতিটি পদক্ষেপের জন্য তাকে নিতে হয় অন্যের সাহায্য। এমন শিশু তো তার পরিবারের কাছেই বোঝা। অনেকের কাছে এটা উপরওয়ালার অভিশাপও।

কিন্তু না, অ্যান্থনির মা-বাবা হেঁটেছেন উল্টো পথে। তারা চেষ্টা করেছেন বৃত্ত ভাঙার। অ্যান্থনিকে তাঁরা উপরওয়ালার উপহার হিসেবে বরণ করে নিয়েছেন। তার জীবন ভরিয়ে তুলেছেন আনন্দ আর সহযোগিতায়। অ্যান্থনির কাছে তার মা-বাবাই হয়ে ওঠেন শ্রেষ্ঠ বন্ধু। মা-বাবার বাড়িয়ে দেওয়া হাত ধরেই অ্যান্থনি পরখ করতে থাকে পৃথিবীর রূপ-রস-গন্ধ।

আগামী শুক্রবার এনটিভির পর্দায় সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে ভেসে উঠবে সেই অ্যান্থনির মুখ। তরুণ নাট্যনির্মাতা জয়ন্ত রোজারিওর পরিচালনা ও কলিন রড্রিকের রচনায় ‘বাড়িয়ে দাও তোমার হাত’ নাটকে অভিনয় করেছেন শতাব্দী ওয়াদুদ, দীপা খন্দকার ও আরো অনেকে।

নাটকটির গল্প নিয়ে জয়ন্ত প্রিয়.কমকে বলেন, ‘নাটকের অ্যান্থনি চরিত্রটি একটি বাস্তব চরিত্র। আমি যখন তার মুখোমুখি হই এবং চোখের সামনে তার বেড়ে ওঠা দেখি, তার প্রতি আমার মমত্ব তৈরি হয়। তার মা-বাবা’র দায়িত্ববোধকে সমাজের জন্য অনুকরণীয় মনে হয়। তারই গল্পের আদলে এই নাটকটি নির্মাণ করেছি। আশা করি, সমাজের মানুষের মন বদলের জন্য এই নাটক একটু হলেও প্রভাব বিস্তার করবে।’

প্রিয় বিনোদন/গোরা