(প্রিয়.কম) জিম্বাবুয়ের মতো দলের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ৩-২ ব্যবধানে হেরেছে শ্রীলঙ্কা। চলছে একমাত্র টেস্ট। সেখানো একপ্রকার ধুঁকছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। শুধু এই সিরিজই নয়, সাম্প্রতিক সময়টা একদমই ভালো যাচ্ছে না ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ জয়ী দলটির। লঙ্কান দলের এখন এমনই খারাপ অবস্থা যে সাবেক ক্রিকেটার ও কিংবদন্তিরা আবার খেলতে নামলেও দলের অবস্থা ভালো করা সম্ভব নয়, এমনটাই মনে করেন স্পিন কিংবদন্তি মুত্তিয়া মুরলিধরন।

শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক ও কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারা জাতীয় দলের হয়ে খেলা ছেড়ে দিলেও এখনও পুরানো রুপেই খেলে যাচ্ছেন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ, ইংলিশ কাউন্টি ও মাস্টার্স ক্রিকেটে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়লেও বেশ কিছুদিন খেলা চালিয়ে এবার মাহেলা জয়াবর্ধনে কোচিং করাবেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দল খুলনা টাইটানসকে। তার হাত ধরে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। মুত্তিয়া মুরালিধরনও কাজ করছেন স্বাধীনভাবে, শেখাচ্ছেন তরুণ ক্রিকেটারদের। তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করেছেন কিছুদিন আগে।

অপরদিকে কদিন আগে কোচের চাকরি ছেড়েছেন গ্রাহাম ফোর্ড, ধারণা করা হচ্ছে ম্যানেজার আশঙ্কা গুরুসিনহার সঙ্গে ব্যক্তিত্বের সংঘাতেই তার এই সিদ্ধান্ত। জিম্বাবুয়ের কাছে ওয়ানডে সিরিজ হারের পর অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। দল যেন খাবি খাচ্ছে ক্রিকেটে টিকে থাকার জন্য। এমন অবস্থায় মুরলিধরন বা সাঙ্গাকারা বা জয়াবর্ধনের মতো ক্রিকেটাররাও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে বাঁচাতে পারবে না।

শ্রীলঙ্কা দলের দুর্দশা এবং বোর্ডের কোনো রকম উদ্বেগ না দেখে কিংবদন্তি অফস্পিনার মুরলিধরন বলেন, ‘এখন আমাকে, সাঙ্গাকারা কিংবা মাহেলাকে (জয়াবর্ধনে) নিয়ে এলেও কিছু হবে না। সমাধানটা তাদের (বোর্ডের) নিজেদেরই বের করতে হবে। ’

দল খারাপ করছে। কিন্তু অবসরে যাওয়া মহারথীদের বোর্ড কোন কাজেই লাগাচ্ছে না, তারা চলে যাচ্ছে অন্য কোথাও। বোর্ড চাইলেও সাবেকদের অভিজ্ঞতা বর্তমান দলের জন্য কাজে লাগাতে পারে। কিন্তু সে বিষয়ে বোর্ডের কোনো মাথা ব্যাথাই নেই। ক্ষোভ ও দুঃখ নিয়েই মুরালিধরন বলেন, ‘অবসরের পর পাঁচ-ছয় বছর হয়ে গেল, আমাদের জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করার জন্য ডাকাই হয়নি। বুঝতে পারি না এমন কেন হচ্ছে। দলের পারফরম্যান্স কেবল নামছেই, আমাদের এটা থামানো দরকার। আমাকে, সাঙ্গাকারাকে বা মাহেলাকে ডেকে আনলে কিছু হবে না, কারণ এখন আমরা অন্য জায়গায় দায়বদ্ধ। তাদের (বোর্ড) নিজেদেরই এ সমস্যার সমাধান করতে হবে।’

প্রিয় স্পোর্টস/কামরুল