(প্রিয়.কম) টানা বর্ষণ ও উজানের ঢলে কুড়িগ্রামের নদ-নদীর পানি বাড়তে থাকায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। ফলে বন্যার পানিতে কুড়িগ্রাম-রংপুর মহাসড়ক ডুবে যাওয়ায় সারা দেশের সঙ্গে যোগাযোগ বিঘ্নিত হচ্ছে। 

ধরলা নদীর পানি বিপদসীমার ১০৮ সেন্টিমিটার ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ২০ সেন্টমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক আবু ছালে মোহাম্মদ ফেরদৌস খান জানান, ১৩ আগস্ট রোববার ভোর থেকে কাঁঠালবাড়ি বাজার থেকে ঝিনাই এলাকা পর্যন্ত এক কিলোমিটার এলাকায় হাঁটু পানি জমে থাকায় ওই মহাসড়কে যান চলাচলে ঝুঁকি রয়েছে। সে কারণে মহাসড়কে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

তিনি জানান, কাঁঠালবাড়ি শহর রক্ষা বাঁধটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে, যেকোনো সময় এটা ভেঙে পড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

এদিকে জেলার সদর, নাগেশ্বরী ভুরুঙ্গামারী উলিপুরসহ ৯টি উপজেলার আড়াই শতাধিক গ্রামের দেড় লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। প্লাবিত হয়েছে আরও নতুন নতুন এলাকা। দেখা দিয়েছে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আমিন আল পারভেজ জানান, কুডিগ্রাম থেকে নাগেশ্বরী ভুরুঙ্গামারী সড়কের চারটি পয়েন্ট তলিয়ে গেছে।

এদিকে কাঁঠালবাড়ি শহর রক্ষা বাঁধটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে, যেকোনো সময় এটা ভেঙে পড়তে পারে।

প্রিয় সংবাদ/অাশরাফ