(প্রিয়.কম) বরাবরের মতো এবারের ঈদের টিভি অনুষ্ঠানমালায়ও থাকবে লাক্স নিবেদিত সাতটি নাটক ‘লাক্স ভালোবাসার সৌরভের গল্প’। অভিনয়ে আছেন দেশের জনপ্রিয় সাত নারী তারকা পূর্ণিমা, নুসরাত ইমরোজ তিশা, মিথিলা, মেহজাবিন, সাফা কবির ও মারিয়া নূর। নির্মাণে রয়েছেন সাত জনপ্রিয় নির্মাতা শিহাব শাহীন, রেদওয়ান রনি, সাফায়াত মনসুর রানা, মাবরুর রশীদ বান্নাহ, ইমরাউল রাফাত, তানিয়া আহমেদ ও তৌকীর আহমেদ। প্রচারিত হবে ঈদের সাত দিন রাত ১০টায়, আরটিভিতে। ইতোমধ্যেই নাটকগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ। প্রকাশ করা হয়েছে প্রমো। 

জন কবির, গানের মানুষ। তবে হঠাৎ হঠাৎ তার দেখা মেলে নাটকে। 'ব্ল্যাক ব্যান্ড' ছেড়েছেন বেশ কয়েক বছর হয়েছে। এরপর তিনি গড়েছেন 'ইন্ডালো' নামে নতুন এক গানের দল। নতুন ব্যান্ড 'ইন্ডালো' নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটে তার। অপরদিকে মডেল ও অভিনেত্রী সাফা কবির। নাটকের জনপ্রিয় মুখ। এবার তাদের দেখা মিলবে ‘মিসম্যাচ’ নামের একটি নাটকে। এটি রচনা পরিচালনা করেছেন ইমরাউল রাফাত। সম্পর্কের টানাপোড়েনের জটিলতা নিয়ে এর গল্প।

গল্পে দেখা যাবে, দুই পরিবারের সম্মতিতেই আবির ও ফাইজার বিয়ে হয়। কিন্তু আবির আর ফাইজার বয়সের ব্যবধান অনেক। দুজনের সংসারের প্রথম থেকেই খুটিনাটি নানা বিষয় নিয়ে শুরু হয় ছোটখাটো দ্বন্দ্ব। আর এই জটিলতা সৃষ্টির মূল মানুষটি আবিরের ছোট বোন রিমি। কথায় কথায় সে ফাইজার ভুল ধরে আর তার মাকে সেগুলো বোঝায় তবে, আবির ফাইজা দুজনেই চেষ্টা করতে থাকে তাদের মাঝের বয়সের শূন্যতা পূরণের আর ফাইজা শ্বশুর বাড়ির পরিবারের সাথে মানিয়ে নেয়া। এর মধ্যে হঠাৎ বাসার সামনে হাজির হয় ফাইজার প্রেমিক দাবি করা এক তরুণ।

শুরু হয় নতুন সংকট। তাহলে কী শেষ পর্যন্ত এই মিসম্যাচের সাফা জনের সম্পর্কের টানাপোড়েনের জটিলতা নিরসন হবে নাকি আরো জটিল হবে। সে প্রশ্নের উত্তর জানতে অপেক্ষা করতে হবে আরও কয়েকটা দিন। নাটকটিতে আবির চরিত্রে জন ও ফাইজা চরিত্রে সাফা অভিনয় করেছেন। লাক্স ভালবাসার সৌরভের গল্পের নাটকটি আরটিভির পর্দায় ঈদের সাত দিন রাত ১০টায়।

‘মিসম্যাচ নাটকের প্রমো।

প্রেম করে বিয়ে করে শাহেদ তানিয়া প্রায় তিন বছর ধরে সুখেই সংসার করছে। দুজনেই চাকরি করছে। একটা সময় দুজনের মধ্যে দ্বন্দ তৈরি হয় যখন শাহেদের মনে হয় প্রচুর পরিশ্রম করা সত্বেও তানিয়া প্রমোশন পাচ্ছে আর শাহেদেও উন্নতি হচ্ছে না। শাহেদের অহমিকায় বাধে তানিয়ার প্রমোশন। তাহলে কী করে তানিয়ার দ্রুত উন্নতি হওয়ার পেছনে তানিয়ার বসের অতিরিক্ত অনুকূল্য? সেটা কী ধরনের? ব্যস, শুরু হয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়া।

এক পর্যায়ে তারা ঠিক করে দুজনের দ্বায়িত্ব পাল্টাপাল্টি করে করবে। অর্থাৎ, সংসারের দায়িত্ব শাহেদেও আর বাইরেরটা তানিয়ার। এরমধ্যে এসে হাজির হয় তানিয়ার শ্বাশড়ী। সে তো বেজায় বিরক্ত হেন কর্মকাণ্ডে। শুরু হয়ে যায় নতুন করে বউ শ্বাশুড়ীর চিরন্তন দ্বন্দ। শেষ পর্যন্ত নাটক কোন দিকে মোড় নেয় সেটা জানতে দর্শকদের চোখ রাখতে হবে আর টিভির পর্দায় ঈদের সাত দিন রাত ১০টায়। তৌকির আহমেদের রচনা ও পরিচালনায় লাক্স ভালবাসার সৌরভের গল্পের নাটক দাম্পত্য এ অভিনয় করেছেন সিয়াম ও মারিয়া নূর।

‘দাম্পত্য’ নাটকের প্রমো।

লাক্স ভালবাসার সৌরভের গল্পে শিহাব শাহীনের রচনায় ও নির্দেশনায় নির্মিত এ নাটকটির শিরোনাম ‘ডিভোর্স’। এরইমধ্যে রাজধানীর উত্তরায় এর শুটিং শেষ হয়েছে। নিশো ও মিথিলার মিডিয়ায় পথচলা প্রায় একই সময়ে। তারা ভালো বন্ধুও। এবারও দুই বন্ধু একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে শুটিংয়ের ফাঁকে ফাঁকে নানা গালগল্পে মেতেছিলেন। গল্পের যে বিষয়বস্তু, তা ফুটিয়ে তুলতে নিশো ও মিথিলার আন্তরিকতার কোনো কমতি ছিল না।

‘এবারের ঈদ উপলক্ষে এটাই আমার শুটিং করা শেষ নাটক। গল্প, পরিচালক এবং কো-আর্টিস্ট মিলিয়েই আমার ভালোলাগা ছিল কাজটিকে ঘিরে। নিশো আমার খুব ভালো বন্ধু। এই সময়ের একজন প্রমাণিত অভিনেতাও বটে। যে কারণে অভিনয়টা দারুণ উপভোগ করেছি।’ কথাগুলো বলেছেন মডেল ও অভিনেত্রী মিথিলা।

‘ডির্ভোস’ নাটকটির প্রমো।

লাক্স ভালবাসার সৌরভের গল্পে নাটক ‘ছেলেটি অবন্তীকে ভালোবেসেছিল’। এটি পরিচালনা করেছেন মাবরুর রশীদ বান্নাহ। আর এতে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন ও সিয়াম। গল্পে অবন্তীর অসুস্থ মামাকে রক্ত দিতে গিয়ে তন্ময়ের ( সিয়াম) সাথে পরিচয় ও বন্ধুত্ব। একসাথে ঘুরে বেড়ানো, ফুচকা খাওয়া এসবেই দিনগুলো ভালই যাচ্ছিল ওদের।

এদিকে তন্ময়ের পড়াশোনা শেষ করে চাকরির জন্য চেষ্টা চলতে থাকে। কিন্তু চাকরির দেখা তন্ময় আর পায় না। আবার অবন্তীর বাবাও মেয়ের বিয়ে দিতে চায়। এভাবে নানা ঘটনায় তন্ময় আর অবন্তীর গল্প এগিয়ে যায়।

‘ছেলেটি অবন্তীকে ভালোবেসেছিল’ নাটকটির প্রমো।

লাক্স ভালবাসার সৌরভের গল্পে নাটক ‘পাঞ্চ ক্লিপ’। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন রেদওয়ান রনি। এতে অভিনয় করেছেন মিথিলা ও ইরেশ যাকের। মূলত দুটি মানুষের ভালোবাসার গল্প নিয়েই গড়ে উঠেছে নাটকটি।

‘পাঞ্চ ক্লিপ’ নাটকটির প্রমো।

প্রিয় বিনোদন/গোরা