২৩ বছর বয়সী তরুণ স্কট পার্ডি। ছবি: সংগৃহীত

ওষুধটি তাকে সমকামী বানিয়ে দিল!

ওষুধ খাওয়ার পর থেকে চিন্তাশক্তি ধীরে ধীরে অস্বাভাবিক হতে থাকে তার। আচরণগত সমস্যা দেখা দেওয়ায় প্রেমিকাও তাকে ছেড়ে চলে যায়।

তাশফিন ত্রপা
ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৫০ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ০৬:৪৮
প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৫০ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ০৬:৪৮


২৩ বছর বয়সী তরুণ স্কট পার্ডি। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সম্প্রতি এক তরুণ দাবি করেন, লিরিকা নামক ব্র্যান্ডের ব্যথানাশক ওষুধ সেবনের পর থেকে তিনি সমকামী বনে গেছেন। প্রিগাবালিন নামের সেই ওষুধ খাওয়ার পর থেকে তার চিন্তাশক্তি ধীরে ধীরে অস্বাভাবিক হতে শুরু করে। তার এই আচরণগত সমস্যা দেখা দেওয়ার কারণে ওই তরুণের প্রেমিকাও তাকে ছেড়ে চলে গেলেন।

লিরিকা ব্র্যান্ডের ব্যথানাশক ওষুধ সেবনের আগে প্রেমিকার সঙ্গে স্কট পার্ডি। ছবি: সংগৃহীত

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইংল্যান্ডে বসবাসকারী ২৩ বছর বয়সী এ তরুণের নাম স্কট পার্ডি। একটি দুর্ঘটনায় স্কট পায়ে বেশ ব্যথা পেয়েছিলেন। সেই ব্যথা সারানোর জন্য তিনি এ ওষুধটি সেবন করেন। কিন্তু হায়, কে জানত এ ওষুধটির কারণে পাল্টে যাবেন তিনি। তার এখন নারীদের চেয়ে পুরুষদের বেশি ভালো লাগে। এমনকি তার প্রেমিকাকেও আর আগের মতো ভালো লাগে না।

লিরিকা ব্র্যান্ডের ব্যথানাশক ওষুধ প্রিগাবালিন ট্যাবলেটটি। ছবি: সংগৃহীত

দ্য সানের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওষুধটির বিষয়ে ইংল্যান্ডে গণমাধ্যমের সঙ্গে দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সংস্থার কথা হয়। তখন সংস্থাটি জানায়, লিরিকা ব্র্যান্ডের প্রিগাবালিন ট্যাবলেটটি মৃগীরোগ, উদ্বেগ, ব্যথা নিবারণে সেবন করা হয়। অন্যান্য ওষুধের মতো এরও কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে।

প্রতি ১০০ জনের মধ্যে একজনের ওষুধটির পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো হলো, সেবনকারী ধীরে ধীরে তার ব্যক্তিত্ব হারিয়ে ফেলেন, বিকৃত চিন্তা করতে থাকেন, অস্বাভাবিক কল্পনায় বিচরণ শুরু করেন, সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগেন। এ ধরনের বেশ কিছু সমস্যা আঁকড়ে ধরে তাকে।

প্রিয় জটিল/আজাদ চৌধুরী