অ্যাক্টিংয়ে পুরোপুরি সময় দেওয়াই আমার লক্ষ্য: সায়েম

‘ছোটবেলার ইচ্ছা ছিল অভিনয়। সেটাই করছি। আপাতত অভিনয় শিখব, সেটাই আমার টার্গেট। অভিনয় করতে করতে অভিনয় শিখব।’

শিবলী আহমেদ
সহ-সম্পাদক
২২ মে ২০১৮, সময় - ১৫:৩১

নাট্যাভিনেতা সায়েম আফরোজ সালেক। ছবি: শামছুল হক রিপন, প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) নাট্যাভিনেতা ও রেডিও জকি সায়েম আফরোজ সালেক। মিডিয়ায় তিনি সায়েম নামেই বহুল পরিচিত।

গত ১৫ মে, মঙ্গলবার উত্তরার স্বপ্নিল-২ শুটিংবাড়িতে দেখা হয় তার সঙ্গে। সেখানে চলছিল মাবরুর রশীদ বান্নাহর পরিচালনায় ‘ছাত্র’ নাটকের শুটিং। এ নাটকে শিক্ষক ভূমিকায় অভিনয় করছেন সায়েম।

শটের শেষে কিছুটা অবসরে সায়েমের সঙ্গে কথা হয় প্রিয়.কমের। সেই আলাপনে উঠে আসে তার ঈদের প্ল্যান, শপিং এবং পছন্দের ব্র্যান্ড নিয়ে।

প্রিয়.কম: আপনার বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

সায়েম: একটি সিরিয়ালে কাজ করছি। আর একটি শর্টফিল্মে কাজ করলাম রিসেন্টলি। দুটোতেই নেগেটিভ ক্যারেক্টার করেছি। আর এই ‘ছাত্র’ নাটকে কাজ করছি। আর ঈদের কিছু নাটকে কাজ করব। এতদিন আমি নাটকে কাজ করার জন্য নিজেকে প্রিপেয়ার করলাম। আমি একটু ভ্যারাইটি রেখে কাজ করে যাচ্ছি আরকি।

প্রিয়.কম: ঈদ কীভাবে কাটাবেন এবার?

সায়েম: ঈদের দিন তো অফিস করতাম। কিন্তু এখন তো অফিস জীবন থেকে ছুটি নিয়েছি কিছু দিনের জন্য। এবার ঈদটা ঈদের মতো করে পালন করব।

গত ১১ বছর ঈদ তো অফিসে পালন করেছি, কিন্তু এবার চেষ্টা করব ঈদটা ভিন্নভাবে পালন করার।

প্রিয়.কম: কী রকম ভিন্ন হতে পারে?

সায়েম: পরিবার বলতে তো আমার তেমন কেউ নেই। বড় ভাই দেশের বাইরে থাকেন। আমি আর আমার বোন। আর বেসিক্যালি ফ্রেন্ড সার্কেল। ঈদের দিন যদি কোনো প্রোগ্রাম থাকে, তাহলে সেই প্রোগ্রামে যাব।

নরমালি ঈদের সময় লাইভ প্রোগ্রাম থাকে টেলিভিশনে। সন্ধ্যা পর্যন্ত ঈদ পালন করে রাতে হয়তো বা সেই প্রোগ্রামে চলে যেতে হয়।

নাট্যাভিনেতা সায়েম আফরোজ সালেক। ছবি: শামছুল হক রিপন, প্রিয়.কম

প্রিয়.কম: ঈদের শপিং করা শুরু করেছেন?

সায়েম: আমি আসলে সারাবছরই শপিং করি। ঈদে আসলে ওইভাবে শপিং করা হয় না। একদম শেষ মুহূর্তে বিপদে না পড়ে গেলে শপিং করা হয় না আরকি। টুকটাক গিফট পেয়ে যাই।

প্রিয়.কম: আপনার পছন্দের ব্র্যান্ড?

সায়েম: আমি আসলে ব্র্যান্ডে বিশ্বাস করি না। দেখি কোনটায় আমাকে মানাল। আমি হয়তো ব্র্যান্ড বুঝি না অথবা ব্র্যান্ড বুঝে চলি না। আমার কাছে মনে হয়, আমি পরার পর যেটা আমার কাছে ভালো লাগবে, সেটা মানুষ দেখতে আসবে না যে, সেটা কোন ব্র্যান্ডের।

আমরা যারা ক্যামেরার মানুষ, আমরা যখন কোনো ড্রেস কিনতে যাই, নরমাল লাইফে কেমন লাগবে সেটা চিন্তা না করে চিন্তা করি যে, ক্যামেরায় কেমন লাগবে। ক্যামেরায় কিন্তু ব্র্যান্ড বোঝা যায় না। বোঝা যায় হচ্ছে, দেখতে কেমন লাগছে। আমার কাছে সেটাই বেশি জরুরি।

প্রিয়.কম: চাকরি থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন, এখন আপনার গোল কী?

সায়েম: আমার লক্ষ্য হচ্ছে আপাতত অ্যাক্টিংয়ে পুরোপুরি সময় দেওয়া। এতদিন আমি অফিসের পাশাপাশি নাটকে সময় দিতাম। তাতে করে আমি সিরিয়ালগুলোতে সময় দিতে পারতাম না। ছুটির দিনে সময় দিতে হতো। এখন আমি যখনই চাই, আমার সিডিউল থাকলে দিয়ে দিতে পারি। এটাই আমি চেয়েছিলাম। কারণ, এটাই আমার ছোটবেলার ইচ্ছা ছিল। বড়বেলায় হঠাৎ করে উপস্থাপক হয়ে গেছি, সেটা ছিল সময়ের প্রয়োজনে। হুট করে হয়ে গেছি। কিন্তু ছোটবেলার ইচ্ছা ছিল অভিনয়। সেটাই করছি। আপাতত অভিনয় শিখব, সেটাই আমার টার্গেট। অভিনয় করতে করতে অভিনয় শিখব।

প্রিয় বিনোদন/শান্ত  

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
নাটক-টেলিছবিতে তৃতীয় দিন
নাটক-টেলিছবিতে তৃতীয় দিন
বাংলা ট্রিবিউন - ২১ মিনিট আগে
কেন ঈদের নামাজ মাঠে পড়তে হয়?
কেন ঈদের নামাজ মাঠে পড়তে হয়?
বাংলা ট্রিবিউন - ৫ ঘণ্টা আগে
ঈদের পরদিনও বাড়ি ছুটছে মানুষ
ঈদের পরদিনও বাড়ি ছুটছে মানুষ
বাংলা ট্রিবিউন - ৫ ঘণ্টা আগে
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন