(প্রিয়.কম) রোহিঙ্গাদের বাঁচাতে মিয়ানমার সীমান্তের ভেতরে ‘সেফ জোন’ (নিরাপদ অঞ্চল) তৈরির বাংলাদেশের দেওয়া প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে মিয়ানমার। দেশটির জাতীয় দৈনিক মিয়ানমার টাইমস রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সুচির কার্যালয়ের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে রাজধানী নাইপিদোতে স্টেট কাউন্সিলর অফিসের মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক ইউ জ্য তে নিরাপদ অঞ্চল তৈরির প্রস্তাবের ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেন, নিরাপদ অঞ্চল তৈরির পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছে সরকার। দেশের ভেতরে ‘সেফ জোন’ একবার প্রতিষ্ঠা হয়ে গেলে আন্তর্জাতিক কর্তারা এর নিয়ন্ত্রণ নেবেন।

আগুনে পুড়ে যাওয়া জনশূন্য রাখাইন রাজ্জ্য। ছবি: সংগৃহীত সেনাদের দেওয়া আগুনে পুড়ে যাওয়া জনশূন্য রোহিঙ্গা গ্রাম। ছবি: সংগৃহীত 

রোহিঙ্গাদের ইউ জ্য তে বলেন, রাখাইন রাজ্যের তিনটি শহরতলির সর্বমোট ৪৭১টি গ্রামের মধ্যে ১৭৬টি গ্রাম এখন জনমানবশূন্য। অন্য ৩৪টি গ্রাম থেকেও কিছু কিছু লোক প্রতিবেশী দেশগুলোতে পালিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, ফিরতে চাইলেও পালিয়ে যাওয়া বাসিন্দাদের সবাইকে অনুমতি দেওয়া হবে না। যাচাই-বাছাইয়ের পরই মিয়ানমার কেবল তাদের গ্রহণ করতে পারে।

প্রসঙ্গত, নতুন করে সহিংসতা শুরুর পর থেকে রাখাইন অঞ্চলের ৪ লাখের বেশি সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা প্রতিবেশী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। গত ২৪ আগস্ট গভীর রাতে বেশ কিছু পুলিশ পোস্টে একযোগে হামলার পর থেকে দেশটির সেনাবাহিনী নজিরবিহীন অমানবিক অভিযান শুরু করে। এর পর থেকেই বাংলাদেশমুখী শরণার্থীর ঢল নামে। 

প্রিয় সংবাদ/শান্ত