(প্রিয়.কম) অল্পবয়সী মেয়ে কোনও বৃদ্ধের স্ত্রী। এ কথা কম-বেশি সবাই শুনেছেন। কিন্তু এমন কি কখনও শুনেছেন, যেখানে এক নাবালকের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে এক তরুণীর? তবে হ্যাঁ, সিরিয়ালের চিত্রনাট্যে এমন গল্প দেখানোতেই বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিতর্কের জেরে একটি বেসরকারি চ্যানেলের জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘পেহেরেদার পিয়া কি’র সম্প্রচার নাকি বন্ধ করা হতে পারে।

ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে’র খবর অনুযায়ী, কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি অনলাইন পিটিশনে অভিযোগ পেয়ে দ্রুত এই সিরিয়ালের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই সেই নির্দেশ পৌঁছেছে ব্রডকাস্টিং কনটেন্ট কমপ্লেন্টস কাউন্সিলের কাছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে সিরিয়ালটির সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়ার কথাই ভাবছে বিসিসিসি। যদিও কবে থেকে সিরিয়াল দেখানো বন্ধ করা হতে পারে তা নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি।

কেন বিতর্ক তৈরি করল সিরিয়ালটি? সে প্রশ্নেরও উত্তর খোঁজা হয়েছে। ধারাবাহিকটি একটি নয় বছর বয়সী ছেলের সঙ্গে ১৯ বছর বয়সী যুবতীর বিয়ে ও তার পরবর্তী সাংসারিক জীবনের চিত্রনাট্য নিয়ে। সম্প্রতি এই অসম জুটির মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া, এক বালকের নিজের প্রায় দ্বিগুণ বয়সী মেয়ের পিছু নেওয়া, ৯ বছরের ছেলের ১৯ বছরের স্ত্রীকে সিঁদুর পরিয়ে দেওয়া, নানা অন্তরঙ্গ দৃশ্যও দেখানো ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়। যেখানে নাবালক-নাবালিকাদের বিয়ে আটকানোর জন্য কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা হচ্ছে, চলছে জোর প্রচারণা, সেখানে নাবালকের সঙ্গে যুবতির বিয়ে দেখানো হয়েছে। তাদের ফুলশয্যার দৃশ্য সম্প্রচারিত হয়েছে। মেয়েটির কপালে সিঁদুর পরিয়ে দিয়েছে নাবালকটি। সে যেন যৌন সম্পর্কের প্রতিনিধিত্ব করছে।

এতে রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে দর্শক। এরপরই দাবি উঠে, কিশোরদের যৌনতা নিয়ে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। এ ধরনের দৃশ্য দর্শক ও শিশুদের মনে কুপ্রভাব ফেলতে পারে। তাই অবিলম্বে ধারাবাহিকটি দেখানো বন্ধ করা উচিত। এর পরই কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে উদ্দেশ্য করে একটি অনলাইন সাইটে পিটিশন শুরু হয়। পিটিশনে স্বাক্ষর প্রায় ৬৭ হাজারেরও বেশি ছাড়িয়ে গিয়েছে। তবে এর আগে এবিষয় নিয়ে সোশাল মিডিয়ায় সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছিলেন সিরিয়ালের প্রধান চরিত্রে অভিনয়কারী তেজস্বী প্রকাশ। পুরো কাহিনি না জেনে প্রতিবাদ করছে সাধারণ মানুষ, বলেছিলেন তিনি। এখন কী সিদ্ধান্ত নেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, তার উপর নির্ভর করছে সিরিয়ালের ভবিষ্যৎ। 

প্রিয় বিনোদন/শামীমা সীমা