জাতীয় রাজস্ব ভবন। ফাইল ছবি

সারা দেশে এনবিআরের রাজস্ব হালখাতা

করদাতাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপন ও বকেয়া রাজস্ব আহরণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) দ্বিতীয়বারের মতো সারাদেশে আয়কর ও ভ্যাট অফিসে আয়োজন করেছে ‘রাজস্ব হালখাতা ও বৈশাখ উৎসব’। এতে করদাতাদের অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে।

আবু আজাদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০১:০৬ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ২১:১৬


জাতীয় রাজস্ব ভবন। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) করদাতাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপন ও বকেয়া রাজস্ব আহরণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) দ্বিতীয়বারের মতো সারা দেশে আয়কর ও ভ্যাট অফিসে আয়োজন করেছে ‘রাজস্ব হালখাতা ও বৈশাখ উৎসব’। এতে করদাতাদের অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে।

১৫ এপ্রিল, রবিবার সকাল ১০টায় রাজধানীসেগুনবাগিচার কর অঞ্চল-৮-এর সম্মেলন কক্ষে এ উৎসবে উদ্বোধন করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক বলেন, ‘আয়কর নিয়ে মনের মধ্যে যে একটা ভয়-ভীতি ছিল। কিন্তু কর পরিশোধ করতে এসে দেখছি যতটা ভয় পেয়েছিলাম ততটা ভয় নয়, কর দেওয়া অনেক সহজ ব্যাপার।’

অনুষ্ঠানে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘রাজস্ব হালখাতা এনবিআর ও করদাতাদের মধ্যে একটি সেতুবন্ধন তৈরি করছে। এ হালখাতার মাধ্যমে আমরা প্রকৃত করদাতাদের সম্মান করবো,যারা স্বেচ্ছায় কর প্রদান করছেন ‘

করদাতা ও কর্মকর্তাদের উদ্দেশ করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘সঠিকভাবে আয়কর প্রদান করলে ব্যবসার ক্ষতি হয় না, ব্যবসা বাড়ে। কোনো করদাতাকে হয়রানি বা উস্কানি না দিতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোনো কর্মকর্তা হয়রানি করলে বা নিয়মের বাইরে কিছু দাবি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

রাজস্ব হালখাতা ও বৈশাখ উৎসব উপলক্ষে গ্রাম-বাংলার ঐহিত্য মাটির হাঁড়ি, পাতিল, কলাগাছ, কুলো, হাত পাখা, মুখোশ, খড়ের গেট আর রং বেরঙের দেয়াল কার্টুনে সাজানো হয় কর অঞ্চল, ভ্যাট কমিশনারেট ও ভ্যাট অফিস। প্রতিটি কর অঞ্চল ও ভ্যাট অফিসে করদাতারা উৎসবমুখর পরিবেশে রাজস্ব পরিশোধ করেন। বকেয়া কর প্রদানের পর করদাতাদের উপহার হিসেবে বই প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কর অঞ্চল-৮-এর কমিশনার সেলিম আফজাল।

প্রিয় সংবাদ/রিমন

 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
পায়ের দেখা ‘পায় না’ পদচারী সেতু
সফিউল আলম রাজা ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
ট্রেন্ডিং