২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজতে গেছেন নেইমার। ছবি:সংগৃহীত

প্রতারণা করেই যাচ্ছে নেইমারের পিএসজি!

গ্রীষ্মকালীন এই দলবদলে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) গিয়ে নেইমার একাই কাঁপিয়ে দিয়েছেন ফুটবলবিশ্বকে।

জুবায়ের আহমেদ তানিন
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০১৭, ১৮:০৭ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২১:০০
প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০১৭, ১৮:০৭ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২১:০০


২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজতে গেছেন নেইমার। ছবি:সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) দলবদলের গত মৌসুমকে বলা যায় ‘সবচেয়ে খ্যাপাটে’। গ্রীষ্মকালীন এই দলবদলে বার্সেলোনা ছেড়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) গিয়ে নেইমার একাই কাঁপিয়ে দিয়েছেন ফুটবলবিশ্বকে। অর্থের পরিমাণও ঠিক তেমনই। ২২২ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে ব্রাজিলিয়ান এই তারকাকে দলে টেনেছে পিএসজি। এখানেই শেষ নয়, নেইমারের পর ১৬০ মিলিয়ন খরচ করে কিলিয়ান এমবাপ্পেকেও দলে টেনেছে ফরাসি জায়ান্টরা। 

পিএসজির এই প্রক্রিয়াকে প্রতারণা মনে করেন লা লিগা সভাপতি হাভিয়ের তেবাস। তার মতে এখনও একই প্রতারণা করে যাচ্ছে নেইমারের পিএসজি।

নেইমারের এই দলবদলের পর পিএসজিকে একহাত নিয়েছিলেন তেবাস। আবারও মুখ খুললেন তিনি। ফরাসি দৈনিক লা’ইকুইপকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন, ‘পিএসজির সকল স্পন্সর, রাজস্ব আসে কাতার থেকে। হোক সেটা প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে। বাকি ক্লাবগুলোর সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যায় অর্থনৈতিকভাবে পিএসজি প্রতারণা করেই যাচ্ছে।’

গত মৌসুমে পিএসজি ছাড়াও প্রচুর অর্থ খরচ করেছে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি। নতুন খেলোয়াড়দের দলে ভেড়াতে যা খরচ হয়েছে তা ক্লাবের বার্ষিক আয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। তেবাসের সমালোচনার মুখে পড়েছে ম্যানচেস্টার সিটিও। কারণ ম্যান সিটির স্পন্সরের অর্থও আসে কাতার থেকে।

তেবাস বলেন, ‘পিএসজি ও ম্যানচেস্টার সিটির যে আয় তাতে দলবদলে এতো খরচ করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। পিএসজি-ম্যান সিটিকে যদি রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনার সঙ্গে তুলনা করি তবে দেখা যাবে পিএসজি-সিটিই এগিয়ে আছে। গত পাঁচ বছরের রেকর্ডস তাই বলছে।’

প্রিয় স্পোর্টস/কামরুল