(প্রিয়.কম) দুপুর একটা থেকে পৌনে চারটা; পৌনে তিন ঘন্টা ঝিরঝিরে বৃষ্টিতে ভিজে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিল মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শকরা। কিন্তু মাঠের কভারই উঠল না। শেষপর্যন্ত খুলনা টাইটান্স বনাম সিলেট সিক্সার্সের ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হল। অপেক্ষার পালায় যোগ হল ঢাকা ডায়নামাইটস বনাম চিটাগং ভাইকিংসের ম্যাচ। সেখানেও একই পরিণতি। সন্ধ্যা সাতটায় দ্বিতীয় ম্যাচও বাতিল! বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ১৫ ও ১৬তম ম্যাচ গেল বৃষ্টির পেটে।

বুধবার বিপিএলের দুটি ম্যাচই বৃষ্টির কারণে বাতিল করা হয়েছে। দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উইকেটের কাভারও ওঠানো সম্ভব হয়নি। মাঠে ক্রিকেটারদের হাহাকার যেন পৌঁছে গিয়েছিল গ্যালারিতেও। সবমিলিয়ে হাজারখানেক দর্শকও মেলেনি মিরপুরে। আউটফিল্ডের সঙ্গে তারাও ভিজল বৃষ্টির পানিতে। ম্যাচের উত্তেজনা মেলেনি, তাই ড্রেসিংরুম থেকে কোন ক্রিকেটার যখন ইনডোরে অনুশীলন করতে যাচ্ছিলেন, সেটা দেখেই মনের আশা মেটাতে হয়েছে। উল্লাস করে যেন অনুশীলনের জন্য চিয়ার আপ করা হচ্ছিল সাব্বির রহমান-ক্যামেরন ডেলপোর্টদের।

গ্যালারি ও উইকেটের একাংশ। ছবি: প্রিয়.কম

দ্বিতীয় ম্যাচের আগে গ্যালারিতে থাকা দর্শকদের নিয়ে যেন মনস্তাত্ত্বিক খেলায় মত্ত হয়েছিল স্টেডিয়ামের মাঠকর্মীরা। মাঝেমধ্যে কাভার উঠিয়ে দেওয়ার ভান করে উল্টো আরও ভালমতো ঢেকে দেওয়া হল। সেটা বুঝতে পেরে অবশিষ্ট দর্শকরা বিরস বদনে মাঠ ছাড়তে শুরু করল। সবমিলিয়ে বৃষ্টির কোপে পড়লো বিপিএলের অষ্টম দিন।

অবশ্য ম্যাচ মাঠে না গড়ানোয় সবচেয়ে লাভ হয়েছে নাসির হোসেনের দল সিলেট সিক্সার্সের। বুধবারের ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে ঢাকা ডায়নামাইটসকে পিছনে ফেলে পাঁচ নম্বর থেকে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছিল তারা। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচটিও পরিত্যক্ত হওয়ায় সেখান থেকে দুই নম্বরে চলে আসে সিলেট, পুরনো জায়গা ফিরে পায় ঢাকা। দিন শেষে তিন ধাপ এগিয়েছে সিলেট সিক্সার্স।

উইকেট ঢাকা ছিল দুপুর থেকেই। ছবি: প্রিয়.কম

বৃষ্টি বিঘ্নিত বৃহস্পতিবারের পর একদিন বিশ্রাম পাচ্ছে দলগুলো। শুক্রবার দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে রাজশাহী কিংস ও সিলেট সিক্সার্স, দ্বিতীয় ম্যাচে খুলনা টাইটান্স ও চিটাগং ভাকিংস।