(প্রিয়.কম) জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ১২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দলটির ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের কোনো প্রভাব পড়েনি জনজীবনে। দোকানপাট খোলা রয়েছে। এমনকি চলছে দুরপাল্লার বাসও। তবে অপ্রীতিকর ঘটনায় এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ রয়েছেন।

প্রিয়.কমের লালমনিরহাটের প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান সাজু জানিয়েছেন, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলায় বৃহস্পতিবারের হরতালে দলটির কোনো নেতা-কর্মীদের দেখা যায়নি। যানবাহন, স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত, ব্যাংক-বীমার কার্যক্রমও চলছে অন্য স্বাভাবিক দিনের মতো। অর্থাৎ জন-জীবনে হরতালের কোনো প্রভাব পড়েনি।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম রশিদুল হক জানিয়েছেন, কেউ যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে সে জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ রয়েছেন।

প্রিয়.কমের সিলেট প্রতিনিধি ইয়াহ্ইয়া মারুফ জানান, সিলেটে রাজপথে নেই জামায়াতের নেতাকর্মীরা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল অফিস আদালত চলছে তার স্বাভাবিক গতিতে। যানবাহন চলাচল ও জনজীবন স্বাভাবিক রয়েছে। নগরীর বিভিন্ন মোড়ে ছোটখাট যানজটও দেখা গেছে। স্বাভাবিক নিয়মে ছেড়ে যাচ্ছে দূরপাল্লার পরিবহনও।

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুছা প্রিয়.কমকে বলেন, ‘হরতালে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। বেলা আড়াইটা পর্যন্ত কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তবে, নগরীতে পুলিশী টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে।’

প্রিয়.কমের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, হরতালে সাতক্ষীরা জেলার কোথাও কোনো ধরনের মিছিল, মিটিং ও পিকেটিংয়ের খবর পাওয়া যায়নি। জেলার অভ্যন্তরীণ সকল রুটে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ভোমরা স্থল বন্দরের আমদানি রপ্তানি কার্যক্রমও স্বাভাবিক রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যেকোনো ধরনের নাশকতা কিংবা সন্ত্রাস দমনে সতর্ক রয়েছে।

প্রিয়.কমের রাজশাহী প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, হরতাল চলাকালে রাজশাহীতে জামায়াতের নেতাকর্মীদের কোনো অবস্থান দেখা যায়নি। রাজশাহীর সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নির্দিষ্ট সময়েই রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে গেছে দূরপাল্লার বাস। 

রাজশাহীর সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

রাজশাহীর সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ছবি: প্রিয়.কম

স্বাভাবিক নগরীর ভেতরের যানবাহন চলাচলও। হরতালে কোথাও পিকেটিংয়ের খবর পাওয়া যায়নি। হরতালে নাশকতা এড়াতে শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। র‌্যাবের টহল অব্যাহত রয়েছে। সাদা পোশাকে গোয়েন্দা তৎপরতাও অব্যাহত রয়েছে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার সরদার তমিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘নাশকতা ঠেকাতে মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ, আর্মড পুলিশসহ অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপর পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।’

প্রিয়.কমের চট্টগ্রাম প্রতিনিধি তাজুল ইসলাম পলাশ জানান, চট্টগ্রামে হরতালে মাঠে নেই জামায়াত। হরতালের কোনো প্রভাব পড়েনি নগরজীবনে। স্বাভাবিক রয়েছে জীবনযাত্রা। জেলার আঞ্চলিক সড়কগুলোতেও যানবহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। জেলার বিভিন্ন টার্মিনাল থেকে সকালে দূর পাল্লার বাস ছেড়ে গেছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা কিংবা পিকেটিংয়ের খবর পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) সালেহ মোহাম্মদ তানভির প্রিয়.কম-কে জানান, হরতাল কঠোর হাতে দমন করতে এবং যেকোনো বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে নগরীর ৮০টি স্পটে প্রায় দেড় হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি সাদা পোষাকে আইশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা টহল দিচ্ছে। 

উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর সোমবার রাত আটটার দিকে রাজধানীর উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টরের একটি বাসার গোপন বৈঠক থেকে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ নয় নেতাকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

দলের শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতার ও রিমাণ্ডে নেওয়ার প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামী বৃহস্পতিবার সারা দেশে হরতালের ডাক দিয়েছে। তবে এই হরতালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কোনো নির্দেশনা নেই বলে জানিয়েছেন দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

এদিকে হরতাল শুরুর চার ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় এ হরতালের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। বৃহস্পতিবার নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘আমি দলের পক্ষ থেকে জানাতে চাই, জামায়াতে ইসলামের এই সকাল-সন্ধ্যা হরতালকে সমর্থন জানাচ্ছে বিএনপি।’

এর আগে বুধবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী বলেছিলেন, ‘হরতালের ব্যাপারে আমাদের পক্ষ থেকে জামায়াতের নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে বিএনপির কোনো কর্মসূচি নেই।’

অন্যদিকে ১১ অক্টোবর বুধবার উত্তরায় মেট্রোরেলের কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘জামায়াতের হরতাল সহিংস রূপ নিলে জবাবও হবে সেরকম। উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। তাদের সহিংসতার কোনো পজেটিভ রেজাল্ট নেই।’।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ