বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ফাইল ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা লিগে বল টেম্পারিং করত পাকিস্তানিরা!

ঢাকাই লিগে অতীতে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা নিয়মিত বল টেম্পারিংয়ের মতো ঘৃণিত কাজ করতো।

সামিউল ইসলাম শোভন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০১৮, ১৮:৩০ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০৩:৩৩
প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০১৮, ১৮:৩০ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০৩:৩৩


বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ফাইল ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ক্রিকেট বিশ্ব উত্তাল অস্ট্রেলিয়ান দলের বল টেম্পারিংয়ের ঘটনায়। সেই আঁচ বাংলাদেশেও ঠেকেছে। সাবেক-বর্তমানদের কাছে গণমাধ্যমের সেই ইস্যুতেই ঘুরেফিরে প্রশ্ন। এর মধ্যেই সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন জানালেন, বাংলাদেশে আগে বল টেম্পারিং হতো। সেটা পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা করত।

২৬ মার্চ, সোমবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রদর্শনী ম্যাচ খেলতে নামেন সুজন-নান্নুসহ সাবেক ক্রিকেটাররা। তারই ফাঁকে গণমাধ্যমের সামনে হাজির হন সুজন। সেখানেই তিনি জানান, ঢাকাই লিগে অতীতে পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা নিয়মিত বল টেম্পারিংয়ের মতো ঘৃণিত কাজ করত।

সুজন বলেন, ‘বাংলাদেশে আগে অনেক পাকিস্তানি ক্রিকেটার লিগ খেলতে আসতো। তখন ঢাকা লিগে এটা (বল টেম্পারিং) অনেক হতো। অনেক অভিযোগ ছিল এটা নিয়ে। ইতিহাস ঘাঁটলে দেখবেন যে, কোন বোলার (পাকিস্তানি) প্রথম ৫ ওভারে ৪০ রান দিত, পরে ৫ রানে ৫ উইকেট নিয়ে নিতো। বল রিভার্স হতো এই কারণে। পাকিস্তানিরা যখনই আসতো এটা হতো।’

বল টেম্পারিংয়ের এই পদ্ধতিটা পাকিস্তানিরা ভালো জানে উল্লেখ করে সুজন আরও বলেন, ‘আমরা ধরে নিতাম যে পাকিস্তানিরা আসলে এটা জানে বা করে । কিন্তু এখন যেটা হলো (অস্ট্রেলিয়া দল) আসলে খুবই দুঃখজনক। এত বড় বড় দল তাদের কেন এসব করতে হবে। মিনোস বা আমরা করলে কি হতো জানি না।’

বাংলাদেশের কেউ কখনো বল টেম্পারিং করেনি বলেও দাবি করেন সুজন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের কাউকে আমি দেখিনি আসলে।’

সুজনের কথায় সায় দিলেন আরেক সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমানে নির্বাচক প্যানেলের সদস্য হাবিবুল বাশার সুমন। তিনি বলেছেন, ‘ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচে কখনো তো হয়ইনি। আর ঘরোয়াতে... মোস্টলি এইগুলা হয় ফার্স্ট ক্লাস লেভেলে। কিন্তু বলের আকৃতি চেঞ্জ করা সেরকম কিছু দেখিনি। সো ফার আমাদের ছেলেদের এই জিনিসটা দেখিনি। আমরা আসলে অভ্যস্ত না, আমাদের ছেলেরা অভ্যস্ত না।’

কেপ টাউনে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে টেস্টের তৃতীয় দিনে বল টেম্পারিং করে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ক্যামেরন ব্যানক্রফট। এর সঙ্গে অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ তথা, পুরো অজি দলই জড়িত বলে জানাচ্ছে সে দেশেরই গণমাধ্যম। এ নিয়ে একের পর এক শাস্তির মুখে পড়ছে দলটি। এরই মধ্যে স্মিথকে এক টেস্টে নিষিদ্ধ, চলতি টেস্টের দুদিনে জায়গা হারানো, ম্যাচ ফি’র পুরোটা কেটে নেওয়া, ব্যানক্রফটকে ৭৫% ম্যাচ ফি কাঁটা ও তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ করা হয়েছে। শোনা যাচ্ছে, আজীবন নিষিদ্ধও হতে পারেন স্মিথ।

প্রিয় খেলা/কামরুল 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...