টেক্সাসে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত সাবিকার ছবি। ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় দেশ পাকিস্তানে আর ফেরা হলো না সাবিকার

সাবিকা ইয়েস এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে প্রিয় দেশ ছেড়ে স্বপ্নের দেশে পাড়ি জমিয়েছিলেন।

আশরাফ ইসলাম
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২২ মে ২০১৮, ১০:৪২ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১১:০০


টেক্সাসে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত সাবিকার ছবি। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের সান্তা ফি হাই স্কুলে বন্দুকধারীর গুলিতে শুক্রবার যারা নিহত হয়েছেন তাদের মধ্যে সাবিকা শেখ নামে এক পাকিস্তানি কিশোরী রয়েছে। ১৭ বছরের সাবিকা ইয়েস এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে নিজের প্রিয় দেশ ছেড়ে স্বপ্নের দেশে পাড়ি জমিয়েছিলেন। কিন্তু স্বপ্নের দেশে আর স্বপ্ন পূরণ হলো না তার।

স্টুডেন্ট এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে যুক্তরাষ্ট্রে যেয়ে বেশ ভালো সময়ই পার করছিল সাবিকা। নিজের দেশ পাকিস্তানে ঈদ পালন করতে ৯ জুন দেশে ফেরারও কথা ছিল। কিন্তু বন্দুকধারীর গুলিতে বলি হতে হলো সাবিকাকে। 

সাবিকার শোকসভা পালন করা হয় হিউস্টনে। শোকসভায় প্রচুর সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন।  জানা গেছে, সাবিকার লাশ কফিনে করে নিজ দেশ পাকিস্তানে পাঠানো হচ্ছে।  

টেক্সাসে পাকিস্তানি তরুণী সাবিকা। ছবি: সংগৃহীত

সাবিকার ইচ্ছা ছিল তার দেশের প্রতি যাদেরই নেতিবাচক ধারণা রয়েছে, তাদের ধারণাকে একদিন সে মিথ্যে প্রমাণ করবে। সাবিকা মনে করত পাকিস্তানে প্রচুর প্রতিভা রয়েছে।  

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও শনিবার এক শোকসভায় বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে চেয়েছিল সাবিকা।’

সাবিকার বাবা আজিজ শেখ মনে করেন, সাবিকার মৃত্যু হয়ত যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র আইন বদলের ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখবে। 

উল্লেখ্য, শুক্রবার টেক্সাসের সান্তা ফি হাই স্কুলে বন্দুকধারীর গুলিতে কমপক্ষে ১০ জন নিহত হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ জানায়, ক্লাস শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হামলার ঘটনা ঘটে। হামলাকারী খুবই পারদর্শী।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট