ছবি সংগৃহীত

এই মৌসুমে বার্সেলোনা কিংবা বায়ার্নে থাকলে বরখাস্ত হতেন গার্দিওলা!

তার অধীনে টানা দশ ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছিল রেড ডেভিলদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবটি। কিন্তু এরপরই একের পর এক ছন্দপতন।

জুবায়ের আহমেদ তানিন
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৮ মে ২০১৭, ১৩:২১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১১:১৬
প্রকাশিত: ১৮ মে ২০১৭, ১৩:২১ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১১:১৬


ছবি সংগৃহীত

পেপ গার্দিওলা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বার্সেলোনা, বায়ার্ন মিউনিখ হয়ে পেপ গার্দিওলা এখন আছেন ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির দায়িত্বে। চার মৌসুমে বার্সাকে ১৪টি ও তিন মৌসুমে বায়ার্নকে সাতটি শিরোপা জেতানো গার্দিওলা কোচিং ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো শিরোপাহীন অবস্থায় কোনো মৌসুম শেষ করতে যাচ্ছেন। বার্সা কিংবা বায়ার্নের দায়িত্বে থাকাকালীন শিরোপাবিহীন কোনো মৌসুম কাটালে চাকরি থেকে বরখাস্ত হতেন গার্দিওলা। এমনটাই জানিয়েছেন এই স্প্যানিশ কোচ

২০১৬ সালে ম্যানচেস্টার সিটির প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন বার্সাকে ট্রেবল জেতানো গার্দিওলা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শুরুটা ভালোই হয়েছিল গার্দিওলার। তার অধীনে টানা দশ ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছিল রেড ডেভিলদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবটি। কিন্তু এরপরই একের পর এক ছন্দপতন। ব্যর্থতার বেড়াজালে ঘুরপাক খেয়ে সবক'টি শিরোপাই হাত ছাড়া হয় তাদের। 

বর্তমানে প্রিমিয়ার লিগের চার নম্বর অবস্থানে থেকে আগামী চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মূলপর্বে খেলার জন্য লড়ছে ক্লাবটি। বার্সেলোনা কিংবা বায়ার্নে থাকলে তাকে বরখাস্ত করা হতো বলে মনে করেন গার্দিওলা, ‘বড় ক্লাবে এই পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে আমি বরখাস্ত হতাম। আমি বাদ পড়তাম দায়িত্ব থেকে। বার্সেলোনা কিংবা বায়ার্ন, শিরোপা না জিতলে আপনি বাদ পড়বেনই। ম্যানচেস্টার সিটিতে আমি দ্বিতীয় সু্যোগ পেয়েছি, এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে আগামী মৌসুমে ভালো করার ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’

ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনিকে সরিয়ে ম্যান সিটির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল ৪৬ বছর বয়সী গার্দিওলাকে। পেলেগ্রিনি প্রিমিয়ার লিগসহ তিনটি শিরোপা জিতিয়েছেন সিটিকে। যার কারণে প্রত্যাশার চাপ আরও বেশি রয়েছে তুলনামূলক সফল কোচ গার্দিওলার উপর। এই চাপ নিয়েই ভালো করার ব্যাপারে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তিনি, ‘আমি আগেও বলেছি, আমার আগের অর্জনের কারণেই আমার উপর এই প্রত্যাশার চাপ। এখানে এসে সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিছু কোচের উপর এই চাপ থাকবে। তা আমাকে মেনে নিয়েই কাজ করে যেতে হবে। এর অন্যথা হলে দায়িত্ব ছেড়ে চলে যেতে হবে।’

প্রিমিয়ার লিগে এই পর্যন্ত ৩৬ ম্যাচে ৭২ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে ম্যানচেস্টার সিটি। এক ম্যাচ বেশি খেলা লিভারপুল ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। ৩৬ ম্যাচে ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে থাকা আর্সেনালও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ওঠার লড়াইয়ে আছে।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

প্রিয় স্পোর্টস/তানিন/আশরাফ