(প্রিয়.কম) তীব্র যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন গর্ভবতী এক তরুণী। দাাঁড়ানোর মতো শক্তি তার ছিল না। প্রসব যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকা সেই তরুণী বার বার বসে পড়ছিলেন। ওই অবস্থায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকদের বার বার আকুতি-মিনতি করছিলেন যেন তার সিজারিয়ান ডেলিভারি করানো হয়। চীনের ওই তরুণীর ভিডিও এখন ইউটিউবে ভাইরাল।

জানা গেছে, চীনের ইউলিন শহরের এক হাসপাতালে প্রসব যন্ত্রণায় ছটফট করছিল ওই মেয়েটি। তার সন্তানের মাথা খুব বড় হওয়ায় যন্ত্রণা হচ্ছিল খুব বেশি। পরিত্রাণ পেতে সিজারিয়ান ডেলিভারি করতে দেওয়ার জন্য পরিজনদের হাতে পায়ে ধরছিলেন তিনি।

কিন্তু চীনের নিয়মানুযায়ী সিজারিয়ান ডেলিভারির জন্য পরিবারের অনুমতি লাগে, যার সন্তান হবে তিনি কী চান তা গুরুত্বহীন। তরুণীটি তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকদের বার বার তাই বোঝাতে চাচ্ছিলেন নিজের অবস্থার কথা। তার সিজারিয়ান ডেলিভারি জরুরি।

কিন্তু শত চেষ্টাতেও কোনো লাভ হলো না। যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যাওয়া মেয়েটির অবস্থা দেখেও স্বামী, শ্বশুরবাড়ি অনড় থাকে নর্মাল ডেলিভারিতেই।

শেষমেষ আর কষ্ট সহ্য না করতে পেরে মেয়েটি খুঁজে নেয় ‘যন্ত্রণা মুক্তির সহজতম উপায়’। হাসপাতালের ওই ভবনের ৬ তলা থেকে লাফ দেন তিনি। মুহূর্তের মধ্যে পেটের বাচ্চাসহ তিনি এ পৃথিবী থেকে চলে যান!

ভিডিও:

সূত্র: দ্য স্ট্রেইটস টাইমস

প্রিয় সংবাদ/মিজান