গর্ভে ৬ মাসের সন্তান নিয়ে প্রাণ বাঁচাতে ৭ দিন হেঁটে বাংলাদেশ সীমান্তে হাসিনা

খাদ্য যখন নেই, আমরা সেখানে কি করে থাকব? তাই নিরুপায় হয়ে পালিয়ে এসেছি।

ইতি আফরোজ
সহ-সম্পাদক
১৯ অক্টোবর ২০১৭, সময় - ১০:১৫

ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা রোহিঙ্গা নারী হাসিনা বেগম। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী কর্তৃক নৃশংস অভিযান থেকে প্রাণ বাঁচাতে হাসিনা বেগম নামের এক রোহিঙ্গা নারী গর্ভে ছয় মাসের সন্তান নিয়ে একটি বাঁশের লাঠি ধরে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে টানা সাতদিন ধরে হেঁটে আরও আট সন্তানসহ স্বামীর সাথে বাংলাদেশ সীমান্তে পালিয়ে এসেছেন। 

১৮ অক্টোবর বুধবার প্রকাশিত বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে এমনই এক অন্তঃসত্ত্বা রোহিঙ্গা নারীর চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।  

হাসিনা বেগম জানান, এভাবে আর পারছেন না। গত ২৪ ঘন্টায় তার পেটে দানাপানি পড়েনি। সেখানে কোনো কাজ করতে পারেন না, তাই ঘরবাড়ি ফেলে চলে এসেছেন।

হাসিনার স্বামী একজন রাজমিস্ত্রী। সেনাবাহিনী কিংবা বৌদ্ধদের বাড়িঘর ও প্রতিষ্ঠানেই একমাত্র তার কাজ করার সুযোগ ছিল। কিন্তু দু'মাস ধরে কোনো কাজ পাননি তার স্বামী। স্থানীয় বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা তাদের কোনো কাজ দিচ্ছে না। ফলে তারা খাদ্যসঙ্কটে পড়ে গিয়েছিলেন। তাদের দশজনের সংসার এবং অনাগত একজন রয়েছে পেটে, কিন্তু রোজগার নেই।

হাসিনা বলেন, ‘খাদ্য যখন নেই, আমরা সেখানে কি করে থাকব? তাই নিরুপায় হয়ে পালিয়ে এসেছি।’

এদিকে পালংখালির আনজুমপাড়া সীমান্তের বাংলাদেশ অংশের শূন্য রেখা বরাবর হাসিনার মতো হাজার হাজার মানুষ অপেক্ষা করছে।    

তাদের সেখান থেকে আর এগোতে দিচ্ছে না বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিবি। বলা হচ্ছে যাচাই-বাছাই হবে তাদের এবং তারপর রোহিঙ্গা শিবিরগুলো থেকে সেনাবাহিনীর নির্দেশনা এলেই তাদের যেতে দেওয়া হবে। তারা খোলা আকাশের নিচে ধানক্ষেতের আলের উপর রয়েছেন। 

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা নিধন অভিযান শুরুর পর প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ইতোমধ্যে ৫ লাখ ৮২ হাজার ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। তবে বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা ৬ লাখেরও বেশি।

সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে পালিয়ে আসার হার আগের চেয়ে কিছুটা কমলেও, অক্টোবরের ১৫ তারিখ থেকে তা আবারও বৃদ্ধি পেয়েছে। চলমান রোহিঙ্গা ঢল অব্যাহত থাকলে শরণার্থীর এ সংখ্যা ১০ লাখে পৌঁছাতে পারে বলেও সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ

জনপ্রিয়
আরো পড়ুন