ইসরাত পায়েল। ছবি: সংগৃহীত 

(প্রিয়.কম) তিনি জনপ্রিয় উপস্থাপিকা। নাম তার ইসরাত পায়েল। ইতোমধ্যেই উপস্থাপনা করে বেশ জনপ্রিয়তা তৈরি করেছেন। এটা তার ভালো দিক। তবে মিডিয়ায় আলোচনা থেকে সমালোচনাই হয়েছে বেশি তাকে নিয়ে। তা হবারই তো কথা। বছর খানেক আগে একটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা নিয়ে বেশ হইচই পড়ে গিয়েছিল তাকে নিয়ে। কারণ তাকে নাকি কুপ্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। আর এটা নিয়ে বেশ আলোচনার-সমালোচনার জন্ম দিয়েছিলে তিনি ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে। কিন্তু বছর যেতে না যেতেই আবারও সমালোচনায় তিনি।

তবে এবার কেউ তার পক্ষে সাফাই গাইতে আসেননি। এবার সত্যি ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে মানুষের ঘৃণার পাত্র হয়েছেন উপস্থাপিকা ইসরাত পায়েল। এ কথা সবারই জানা, ধর্ষক নাঈম তার বন্ধু ছিলেন। কাজের কারণে বন্ধুত্ব থাকতেই পারে, কিন্তু তাই বলে নাঈম যখন ধর্ষক হিসেবে সারা দেশে পরিচিত ঠিক তখনই ফেসবুকে তিনি নাঈমের ধর্ষণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এছাড়াও ধর্ষিতা দুই মেয়ের বাবা-মায়ের শাস্তিও দাবিও করেছিলেন তিনি। আর এ নিয়ে বেশ বির্তকের মুখে পড়েন তিনি।

পরিশেষে এক সাংবাদিকের মন্তব্যের পর স্ট্যাটাসটি তিনি মুছে ফেলেন ফেসবুক থেকে। কিন্তু ততক্ষণে সেই সাংবাদিক স্ক্রিনশট দিয়ে পুরো বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছিলেন সেই বির্তকিত স্ট্যাটাসটি। এরপর বেশ সমালোচনা শুরু হয়। কারণ তিনি একজন নারী হয়ে অন্য দুই নারীর ধর্ষণ নিয়ে ধর্ষকের পক্ষে কথা বলায় অনেকেই অনেক কিছু জানিয়েছিলেন। কিন্তু অভিনেত্রী ইসরাত পায়েল যে বিবাহিত তা কেউই জানতে না।

কিন্তু সাংবাদিকের ওই স্ক্রিনশট দেওয়ার পর পাঠকের সামনে আসে- তিনি বিবাহিত। কিন্তু এতদিন মিডিয়াতে তিনি বিবাহিত না বলেই জানত সবাই। এদিকে, আরও ঘটনা বাকি আছে। গত বছরই তিনি হুট করে এক অপরিচিত মানুষের সঙ্গে বেশ কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি প্রকাশ করেছিলেন কক্সবাজারে সমুদ্রসৈকতে। কিন্তু জাতির মনে প্রশ্ন উঠেছে, চার বছর আগে কাবিন করা এই ভদ্রলোক পায়েলের স্বামী হলে, গত বছর কক্সবাজারের সৈকতের সেই ব্যক্তিটি কে? 

সম্পাদনা: শামীমা সীমা / গোরা