রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে ফ্রান্সের সহযোগিতা চাইলেন রাষ্ট্রপতি

‘বৈঠকে রাষ্ট্রপতি বলেছেন, বাংলাদেশ জনবহুল দেশ হওয়ার পরেও শুধুমাত্র মানবিক বিবেচনায় রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দিয়েছে। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত নিতে রাষ্ট্রপতি এ সময় মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগে ফ্রান্সের সহযোগিতা চান।’

জানিবুল হক হিরা
সহ-সম্পাদক
১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, সময় - ২১:২৯

ঢাকায় নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত সোফি অবার্ট বঙ্গভবনে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে। ছবি: ফোকাস বাংলা

(প্রিয়.কম) বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে মিয়ানমার সরকারকে চাপ দিতে ফ্রান্সের সহযোগিতা চেয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

১৪ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকায় নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত সোফি অবার্ট বঙ্গভবনে বিদায়ী সাক্ষাৎ করতে গেলে আবদুল হামিদ এ আহ্বান জানান।

বৈঠক শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের বলেন, ‘বৈঠকে রাষ্ট্রপতি বলেছেন, বাংলাদেশ জনবহুল দেশ হওয়ার পরেও শুধুমাত্র মানবিক বিবেচনায় রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দিয়েছে। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত নিতে রাষ্ট্রপতি এ সময় মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগে ফ্রান্সের সহযোগিতা চান।’

প্রেস সচিব জানান, বিদায়ী ফরাসি দূতের সাথে আলোচনায় রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের দ্বিপক্ষীয় চমৎকার সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে আশা করেন, দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য-বিনিয়োগ সম্পর্ক সামনের দিনে আরও শক্তিশালী হবে।

বিদায়ী দূতকে বাংলাদেশে তার দায়িত্ব সাফল্যের সাথে শেষ করার জন্য রাষ্ট্রপতি তাকে অভিনন্দন জানান।

রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সহযোগিতার জন্য এবং স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ায় ফরাসি সরকার ও জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

বিদায়ী দূত তার দায়িত্ব পালনকালে সার্বিক সহযোগিতার জন্য রাষ্ট্রপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। অবার্ট আশা করেন, তার দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও সম্প্রসারিত হবে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত 

জনপ্রিয়
আরো পড়ুন