বঙ্গভবনে ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের নেতা পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে বৈঠকে রাষ্ট্রপতি। ছবি: ফোকাস বাংলা

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে পোপের সহায়তা চেয়েছেন রাষ্ট্রপতি

রোহিঙ্গার সংকট প্রশ্নে পোপের অবস্থানের প্রশংসা করে রাষ্ট্রপতি আশা প্রকাশ করেন যে, রোহিঙ্গাদের তাদের পিতৃভূমিতে নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসন নিশ্চিতকরণে পোপ ফ্রান্সিস খুবই ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবেন।

শেখ নোমান
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০১৭, ২২:০২ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২৩:১৬
প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০১৭, ২২:০২ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২৩:১৬


বঙ্গভবনে ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের নেতা পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে বৈঠকে রাষ্ট্রপতি। ছবি: ফোকাস বাংলা

(প্রিয়.কম) বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ বাসভূমে ফেরাতে এবং সংকট সমাধানে মিয়ানমার সরকারের ওপর অব্যাহত চাপ প্রয়োগে পোপ ফ্রান্সিসের সহায়তা কামনা করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। 

৩০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের নেতা পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে এক বৈঠকে রাষ্ট্রপতি এ সহায়তা চান। 

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন জানান, বৈঠকে রাষ্ট্রপতি রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যাতে মিয়ানমার সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করে সেক্ষেত্রে পোপের সক্রিয় সহায়তা কামনা করেন। 

রোহিঙ্গার সংকট প্রশ্নে পোপের অবস্থানের প্রশংসা করে রাষ্ট্রপতি আশা প্রকাশ করেন যে, রোহিঙ্গাদের তাদের পিতৃভূমিতে নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসন নিশ্চিতকরণে পোপ ফ্রান্সিস খুবই ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে ভ্যাটিকান সিটির আন্তরিক সমর্থনের কথা স্মরণ করে বলেন, ১৯৭৩ সালে ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে ভ্যাটিকান সিটির দূতাবাস খোলার পর থেকে বাংলাদেশ ও ভ্যাটিকান সিটির সম্পর্ক ধীরে ধীরে জোরদার হয়েছে। 

বাংলাদেশকে একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ধর্ম যার যার কিন্তু এর উৎসবগুলো সবার।’ 

এর আগে সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ পোপ ফ্রান্সিসকে বঙ্গভবনে স্বাগত জানান।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত  

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...