রোহিঙ্গাদের ঘর-বাড়িতে আগুন। ছবি সংগৃহীত 

রাখাইনের ১৭৬ রোহিঙ্গা গ্রামে একজন মানুষও নেই!

রাখাইন রাজ্যের ৪৭১টি গ্রামের মধ্যে ১৭৬টি গ্রাম এখন জনমানবশূন্য। তারা দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছে প্রতিবেশী দেশগুলোতে। এ ছাড়া ৩৪টি গ্রাম থেকেও কিছু কিছু রোহিঙ্গা পালিয়েছে।

ইতি আফরোজ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২:৫৯ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২০:০০
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২:৫৯ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২০:০০


রোহিঙ্গাদের ঘর-বাড়িতে আগুন। ছবি সংগৃহীত 

(প্রিয়.কম) সম্প্রতি মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলমান সহিংসতা তীব্র আকার ধারণ করেছে। রাখাইন রাজ্যের হাজার হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এ অবস্থায় দেশটির রোহিঙ্গা অধ্যুষিত ১৭৬টি গ্রামে একজন মানুষও নেই। জন মানবশূন্য হয়ে পড়েছে এই ১৭৬টি গ্রাম।  

মিয়ানমারের প্রেসিডেন্টের দফতরের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ভারতের দৈনিক হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, রাখাইনে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামে চলমান সেনা অভিযানে এখানকার বাসিন্দারা পালিয়ে গেছে। 

আগুনে পুড়ে যাওয়া জনশূন্য রাখাইন রাজ্জ্য। ছবি: সংগৃহীত 

এক বিবৃতিতে মিয়ানমারের প্রেসিডেন্টের দফতরের মুখপাত্র জ হতয় জানান, রাখাইন রাজ্যের তিনটি শহরতলির সর্বমোট ৪৭১টি গ্রামের মধ্যে ১৭৬টি গ্রাম এখন জনমানবশূন্য। অন্য ৩৪টি গ্রাম থেকেও কিছু কিছু লোক প্রতিবেশী দেশগুলোতে পালিয়ে গেছে।

বিবৃতিতে ‘রোহিঙ্গা’ নামটি ব্যবহার করেননি জ হতয়। তিনি আরও বলেন, ফিরতে চাইলেও পালিয়ে যাওয়া বাসিন্দাদের সবাইকে অনুমতি দেওয়া হবে না। যাচাইবাছাই এর পরই মিয়ানমার কেবল তাদের গ্রহণ করতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ আগস্ট রাতে সহিংসতা শুরুর পর থেকে রাখাইন অঞ্চলের প্রায় ৩ লক্ষ ৭০ হাজারেরও বেশি সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা মিয়ানমার থেকে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

গত ২৪ আগস্ট গভীর রাতে বেশ কিছু পুলিশ পোস্টে একযোগে হামলার পর থেকে দেশটির সেনাবাহিনী নজিরবিহীন অমানবিক অভিযান শুরু করে। এর পর থেকেই বাংলাদেশমুখী শরণার্থীর ঢল নামে। 

সূত্র: দৈনিক হিন্দুস্তান টাইমস

প্রিয় সংবাদ/শিরিন