(প্রিয়.কম) টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থী সব ক্যাম্পে টেলিটকের বুথ থাকবে। সেখান থেকে নামমাত্র মূল্যে লোকাল কল করে তাদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন রোহিঙ্গারা।’

২৩ সেপ্টেম্বর শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, শরণার্থী ক্যাম্পে ১৬/১৭টি কেন্দ্র খোলা হবে। ইতোমধ্যে ক্যাম্পে টেলিটকের ২-জি নেটওয়ার্ক চালুর কাজ শুরু হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে তা সম্পন্ন করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শরণার্থীদের জন্য মানবিক। তাদের খাদ্য, স্বাস্থ্য ও যোগাযোগের বিষয় নিয়েও আমরা আন্তরিক। তবে যে সব রোহিঙ্গা নিবন্ধনের আওতায় আসছেন তাদের কাছে সিম বিক্রি করা যাবে কিনা সেটি পরবর্তীতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তের পর নির্ধারণ করা হবে।’

তারানা হালিম জানান, অবৈধভাবে রোহিঙ্গাদের কাছে সিম বিক্রির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে। আর যারা এ কাজের সঙ্গে জড়িত আছেন তাদেরকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে এসে কঠিন শাস্তি দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১১ আগস্টে রাখাইন রাজ্যে সেনা মোতায়েনের পর ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা ‘জাতিগত নিধন’ শুরু করে। ঘটনায় প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে লাখ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী। পুরানো পাঁচ লাখ রোহিঙ্গার সাথে নতুন অভিযানে ইতোমধ্যে যোগ হয়েছে আরও প্রায় পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা

সারা বিশ্বে ইউএনএইচসিআর কতৃক নিবন্ধিত ১৭.২ মিলিয়ন শরণার্থীর ৩০% এখন বাংলাদেশে। এরই মধ্যে চলমান রোহিঙ্গা ঢল অব্যাহত থাকলে শরণার্থীর এ সংখ্যা ১০ লাখে পৌঁছাতে পারে বলেও সতর্ক করেছে জাতিসংঘ। এত সংখ্যক শরণার্থীর দায়িত্ব তাদের পক্ষেও নেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

প্রিয় সংবাদ/রিমন