(প্রিয়.কম) সাইফ আলি খানের চেয়ে তার পরিবার লাইমলাইটে থাকেন বেশি। তার অভিনীত ‘শেফ’ ছবিটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়লেও তার স্ত্রী কারিনা ও পুত্র তৈমুরের কারণে সংবাদের শিরোনামে আছেন তিনি। এবার সম্পত্তি নিয়ে বিবাদে জড়ালেন সাইফ। পাকিস্তানের এক আত্মীয়র সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে লড়াই করছেন বলিউডের ছোট নবাব।

সম্প্রতি ভোপালের শেষ নবাব হামিদুল্লাহ খানের প্রকৃত উত্তরসূরী বলে দাবি করলেন এক পাকিস্তানের লাহোরের বাসিন্দা ইয়াসের মির্জা। সম্পত্তির দাবি নিয়ে সপ্তাহ তিনেক আগে ইমার্জেন্সি পাসপোর্ট নিয়ে ভারতে এসেছেন ইয়াসের। ইতোমধ্যে জব্বলপুর হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছেন ইয়াসের। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, তার দাদি রাবিয়া সুলতান ভোপালে থাকতেন। নবাবের কনিষ্ঠ কন্যা ছিলেন তিনি। সেকারণে তিনিই সম্পত্তির উত্তরসূরী। তাকে হামিদুল্লাহ খানের প্রকৃত উত্তরাধিকারী হিসেবে মেনে নেওয়া হলে তিনি নবাবের কোটি কোটি টাকা মূল্যের ৩০টি মত বিতর্কিত সম্পত্তির মালিকানা চাইতে পারবেন।

সংবাদমাধ্যমকে ইয়াসের এও জানিয়েছেন, তিনি নাগপুরে জন্মেছেন। ভোপালে অনেকটা সময় কাটিয়েছেন। অনেকবছর আগে ভারত ছেড়ে মায়ের সঙ্গে লাহোরে চলে যান। পাসপোর্ট বাতিল হয়ে গেলেও ভারতীয় নাগরিকত্ব ছাড়েননি। এখন দেশে ফিরতে চান। জানা গেছে,এই মামলার শুনানি আগামী ২৪ তারিখ।

তবে সাইফ ও তার মা শর্মিলা ঠাকুর ইয়াসেরের দাবি মানতে চাননি। তাদের বক্তব্য, ইয়াসের পাকিস্তানি নাগরিক। ফলে এদেশের সম্পত্তির দাবি করতে পারেন না। সাইফ জানিয়েছেন, তার দাদি নবাব সাজিদা বেগম যাবতীয় স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির একমাত্র অধিকারী ছিলেন। 

সূত্র: ডিএনএ

প্রিয় বিনোদন/গোরা