(প্রিয়.কম) অনেক মানুষ আছে, যারা অনেক উচ্চ শিক্ষা নিয়ে, কষ্টসাধ্য করেও জীবনে সফল হতে পারেন না। আর কিছু শিশুর বড় হতে হয় না, জন্মেই সরাসরি স্টার হয়ে উঠেন তারা। তৈমুর আলী খান- সে রকমই এক শিশু। বাবা সাইফ আলী খান এবং মা কারিনা কাপুর খানের কল্যাণে জন্মেই এই শিশু জনপ্রিয়তা অর্জন করে ফেলেছে। শুধু তাই নয়, বাবা-মা এর সাথে সাথে তৈমুরও হয়ে উঠেছে পাপারাজ্জিদের নজরবন্দি।

কিন্তু পুত্রের এই জনপ্রিয়তাই যেন দুঃশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ালো সাইফ-কারিনার জন্য। সে কারণেই মাত্র নয় মাস বয়সী তৈমুরকে নিয়ে ভিন্ন ভাবে চিন্তা করছেন তারা। পুত্রকে এসব থেকে দূরে রাখতে সাইফ-কারিনা দম্পতি তৈমুরকে বোর্ডিং এ দেওয়ার কথা ভাবছেন! এ সিদ্ধান্তকে কঠোর শুনালেও সম্প্রতি এক ওয়েব পোর্টালে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পতৌদির ছোট নবাব সাইফ আলী খান জানান- তৈমুরের চোখ দুটো খুবই নিষ্পাপ, সেখানে নেই কোনো অহংকার। কিন্তু এই নিষ্পাপ চোখ দুটো নিয়েই বেশ চিন্তিত তিনি এবং কারিনা।

এ বয়সে একটা বাচ্চার এই পরিমাণ স্টারডম দেখে রীতিমত ভীত সাইফ-কারিনা, প্রায়ই তারা এ বিষয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেন। আর এই আলোচনা থেকেই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এসব থেকে তৈমুরকে দূরে রাখার জন্যই ইংল্যান্ডের বোর্ডিং স্কুলে পাঠানো হবে তাকে। সাইফ আরো জানান, তৈমুর প্রথম নন, তাদের পরিবারের সবার ক্ষেত্রেই এই ঘটনাই ঘটেছে। আর এটাই পতৌদি পরিবারের ঐতিহ্যবাহী রীতির মধ্যে একটি। সাইফ মনে করেন, বোর্ডিং দেওয়ার সিদ্ধান্তই ভবিষ্যতে তৈমুরকে ঠিক পথে চলতে সাহায্য করবে।

সূত্র: জি নিউজ বাংলা।

প্রিয় বিনোদন/গোরা