হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ছবি: সংগৃহীত

শাহজালাল বিমানবন্দরে মশার রাজত্ব, বিপাকে কর্তৃপক্ষ

টার্মিনালে অপেক্ষমাণ অনেক যাত্রী ভেবেছিলেন হয়তো আগুনের ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু পরে তারা বিষয়টি আঁচ করতে পারলেন, এটা আগুনের ধোঁয়া নয়, ধূপ থেরাপি।

মোস্তফা ইমরুল কায়েস
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ মার্চ ২০১৮, ২২:২৫ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৯:৩২


হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মশা নিয়ে মহাবিপাকে পড়েছেন শাহজালাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। কোনোভাবেই তারা বিষয়টির সমাধান টানতে পারছেন না। আধুনিক পদ্ধতিতে ব্যর্থ হয়ে চলে গেছেন মান্ধাতার আমলের মশা দমন পদ্ধতিতে। এ জন্য প্রায় সপ্তাহ দুই ধরে পুরো বিমানবন্দরে চলছে ধূপ থেরাপি। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হচ্ছে না। পরবর্তীতে কোন পদ্ধতি ব্যবহার করা যায়, এখন তা নিয়ে ভাবছেন কর্তৃপক্ষ।

মশার কারণে বিড়ম্বনায় পড়ছেন বিদেশ-ফেরত বিভিন্ন যাত্রী। বিশেষ করে যারা দীর্ঘদিন পর দেশে ফিরছেন তাদের কাছে বিমানবন্দরের মশার উৎপাতের বিষয়টি বিস্ময়কর ও অদ্ভুত মনে হচ্ছে।

১৫ মার্চ, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা ৫ মিনিট। শাহজালাল বিমানবন্দরের গ্রিন চ্যানেল থেকে শুরু করে পুরো টার্মিনালই ধোঁয়ায় সাদা হয়ে গেছে। এ দৃশ্য দেখে আন্তর্জাতিক বহির্গমন টার্মিনালে অপেক্ষমাণ অনেক যাত্রী ভেবেছিলেন হয়তো আগুনের ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু পরে তারা বিষয়টি আঁচ করতে পারলেন, এটা আগুনের ধোঁয়া নয়, ধূপ থেরাপি।

গত ১০ মার্চ, শনিবার রাতে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজে শাহজালাল বিমানবন্দরে নামেন ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান খান। বিমানবন্দরে নেমে লাগেজের জন্য অপেক্ষা করছিলেন তিনি। কিন্তু ওই সময়ই তাকে ঝাঁকে ঝাঁকে মশা ঘিরে ধরে তাকে। মশার কামড় খেয়ে ছোটাছুটি শুরু করেন সিঙ্গাপুর-ফেরত এই যাত্রী। পরে মশার কামড়ে বিরক্ত হয়ে তাকে বলতে শোনা গেল, ‘একটি আন্তর্জাতিক মানের বিমানবন্দরের যদি এই হাল হয়, তবে বাকিগুলোর কী অবস্থা!’

ধুপের ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন বিমানবন্দরের টার্মিনাল। ছবি: প্রিয়.কমধূপের ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন বিমানবন্দরের বহির্গমন টার্মিনাল। ছবি: প্রিয়.কম

অন্যদিকে ১১ মার্চ রাত ৮টায় সৌদি আরব থেকে ইত্তেহাদ এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে ফেরেন সুলতানা বেগম। তিনি সেখানে গৃহকর্মীর কাজ করতে গিয়েছিলেন, কিন্তু থাকতে পারেননি। বিমান থেকে নেমে তিনি বন্দরের উত্তর পাশের ক্যানোপি-২ নম্বর গেটের সামনে দাঁড়িয়ে স্বজনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এই সময় তাকে হাত-পা নাচাতে আর লাফাতে দেখা গেল। পরে তার কাছে গিয়ে জানতে চাইলাম, এমন করছেন কেন? কথা শুনেই চট করে উত্তর দিলেন, ‘দেখছেন না, মশা মামা আদর করে?’ তিনি বলেন, ‘দাঁড়াতেই তো পারছি না, পুরো হাত-পায়ে মশা কামড়াচ্ছে। এক হাত নাড়াতে আরেক হাতে এসে ধরছে মশা।’

শুধুই হাবিবুর ও সুলতানাই নন, তাদের মতো বিদেশ-ফেরত এবং বিদেশগামী সব মানুষকে মশার কামড় খেতে হচ্ছে। এর পাশাপাশি আছে শাহজালাল বিমানবন্দরজুড়ে ইঁদুর ও বিড়ালেরও উৎপাত। ফলে যাত্রীদের পাশাপাশি অতিষ্ঠ বিমানবন্দরে আগত দর্শনার্থীরাও।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি রাতে মশার কারণে সঠিক সময়ে ছেড়ে যেতে পারেনি মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের এমএইচ ১৯৭ একটি ফ্লাইট। বিমানটি ছাড়বে সেই মুহূর্তে যাত্রীরা মশার কামড়ে চিৎকার শুরু করেন। বাধ্য হয়ে পাইলট বিমানটি আর ছাড়েননি। পরে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ছুটে আসেন এবং পুরো বিমানে মশার ওষুধ ছিটিয়ে স্প্রে করা হয়। তারপর দুই ঘণ্টা পর বিমানটি গন্তব্যে রওনা হয়।

গত ২২ জানুয়ারি সকালে বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জ দোলনচাঁপায় এক নারী অতিথিকে ইঁদুর কামড় দেয়। এতে তার পায়ে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছিল। পরে ওই নারীর পায়ে ভ্যাকসিন পর্যন্ত দিতে হয়েছে। এ নিয়ে ব্যাপক হুলস্থূলও বেধে গিয়েছিল বলে বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়।

আধুনিক পদ্ধতি বাদ দিয়ে ধুপ জ্বালানো হয়েছে। ছবি: প্রিয়.কম ধূপ জ্বালিয়ে মশা তাড়ানো হচ্ছে। ছবি: প্রিয়.কম

ওই দিনের পর থেকে বেশ নড়েচড়ে ওঠে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। তারা সেদিনের পরই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ এবং এ পর্যন্ত কয়েক দফা বৈঠকও করে। সেই বৈঠকগুলোতে মশা কীভাবে প্রতিরোধ করা যায় তার জন্য সিটি করপোরেশনের সহযোগিতাও চাওয়া হয়। এরই অংশ হিসেবে রানওয়ে ও টার্মিনালগুলোর জলাশয় ও ঝোপঝাড়গুলো তুলে ফেলার উদ্যোগ নেয় কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি মশা তাড়াতে ডিএনসিসি ও সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে ১০ দিনের ক্রাশ প্রোগ্রাম গ্রহণ করলেও তা কাজে আসেনি।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এখন মশা থেকে যাত্রী ও দর্শনার্থীদের রেহাই দিতে ধূপ থেরাপি শুরু করেছে। এরই অংশ হিসেবে গত শনিবার থেকে টার্মিনালজুড়ে ৫০টিও অধিক হাঁড়ি বসানো হয়েছে। প্রতিদিন বিকেল ৫টা ৫০ মিনিটে এসব হাঁড়িতে আগুন দিয়ে ধূপ জ্বালানো হয়। এই ধূপের হাঁড়িগুলোতে নারিকেলের ছোবড়া, ধানের তুষ ও কাঠের গুঁড়ার সঙ্গে ধূপ দেওয়া হচ্ছে। আর তাতে ধোঁয়ার সৃষ্টি হলে তা প্রায় সোয়া ৬টা পর্যন্ত রাখা হয় বলে জানা গেছে। তবে এই পদ্ধতিতেও মশা নিধন না হলে আগামীতে নিমপাতা, নিশিন্দা, হলুদ, পাতিলেবু, কর্পূরসহ বেশ কিছু ভেষজ পদ্ধতি ব্যবহার করা হতে পারে বলেও জানা গেছে।

তবে এই ধূপ থেরাপিকে কিছুতেই আমলে নিচ্ছে না মশক বাহিনী। উল্টো ধূপের ঝাঁঝালো গন্ধে অনেক যাত্রী অস্বস্তি অনুভব করছেন। এসব নিয়ে গেল দুই সপ্তাহে বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ গেছে বিস্তর। মশা নিধনে কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতা আর মশা উপদ্রব আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশের সুনাম নষ্ট করছে বলে মনে করছেন অনেকে।

১৭ মার্চ, শনিবারও বিমানবন্দরের দুই টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, বিকেল থেকেই এই মশা উৎপাত শুরু হয়। কোনো যাত্রী বা দর্শনার্থীই ভালোভাবে বসে এবং দাঁড়িয়ে থাকতে পারছেন না।

সন্ধ্যা নামতেই মশারা ঘিরে ঝাঁকে ঝাঁকে। ছবি: প্রিয়.কমসন্ধ্যা নামতেই  বিমানবন্দর এলাকায় ঝাঁকে ঝাঁকে মশা উড়তে থাকে। ছবি: প্রিয়.কম

এর আগে গত সোমবার শাহজালাল বিমানবন্দরে প্রবেশের সময় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এপিবিএনের এক নারী সদস্যকে হাতে মশার কয়েল নিয়ে থাকতে যায়। তৃপ্তি নামের ওই সদস্য জানান, যেদিন বিকেলবেলা ডিউটি পড়ে তাকে একটি করে কয়েল কিনতে হয়। হাতে কয়েল জ্বালিয়েই আগত ব্যক্তিদের দিকে প্রতি দৃষ্টি রেখে ডিউটি পালন করতে হয়। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা শুধু এই নারী সদস্যই নন, তার মতো এই বিমানবন্দরে হাজার খানেক নিরাপত্তা কর্মীকে মশার হাত থেকে রেহাই পেতে একই কাজ করতে হচ্ছে। তবে বিমানবন্দরের ভেতরে ধূপ থেরাপি প্রয়োগ করা হলেও এর বাইরে কোনো প্রকারের ব্যবস্থা চোখে পড়ছে না।

সমস্যার কথা স্বীকার করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেন, ‘মশা নিধনে টার্মিনালজুড়েই ধূপ জ্বালানোর পাশাপাশি আধুনিক পদ্ধতির ইউএলবি স্প্রে মসকুইটো টেপ, এয়ারকার্টার ব্যবহার করা হচ্ছে।’

অন্যদিকে সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল নাঈম হাসান প্রিয়.কমকে বলেন, ‘বিমানবন্দরে মশা প্রতিরোধে বর্তমানে ধূপ থেরাপি কাজে লাগানো হচ্ছে। প্রতিদিন বিকেলে এটা করা হয়। যখন বিমানবন্দরে লোকজন কম থাকে সেই সময় ধূপ জ্বালানো হয়। আর এতে সহযোগিতা করছে উত্তর সিটি কর্তৃপক্ষ। মশা নিধন না হওয়া পর্যন্ত এই পদ্ধতি অব্যাহত থাকবে।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ/আজাদ চৌধুরী

 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন কোথায়, কীভাবে
প্রদীপ দাস ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
২৯ সেপ্টেম্বরের পর জাতীয় ঐক্যের কমিটি
মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
নারায়ণগঞ্জে ‘মাদক ব্যবসায়ী’ সাজুসহ গ্রেফতার ৪
ইমামুল হাসান স্বপন ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
খুলনার নবনির্বাচিত মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ
শেখ নোমান ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকদের ১০ দফা দাবি
প্রিয় ডেস্ক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
স্পন্সরড কনটেন্ট
সাপে কামড়েছে? বিরত থাকুন এসব করা থেকে
সাপে কামড়েছে? বিরত থাকুন এসব করা থেকে
সময় টিভি - ১ দিন, ১৩ ঘণ্টা আগে
ভিমরুলের কামড়ে প্রাণ গেল তামিমের
ভিমরুলের কামড়ে প্রাণ গেল তামিমের
জাগো নিউজ ২৪ - ২ দিন, ২৩ ঘণ্টা আগে
সিংড়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু
সিংড়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু
https://www.banglanews24.com/ - ৩ দিন, ১৮ ঘণ্টা আগে
সাপের কামড়ে গৃহবধূর মৃত্যু
সাপের কামড়ে গৃহবধূর মৃত্যু
বাংলা ট্রিবিউন - ৪ দিন, ১ ঘণ্টা আগে
বাজ‍ারে এলো বসুন্ধরার এক্সট্রিম মশার কয়েল
বাজ‍ারে এলো বসুন্ধরার এক্সট্রিম মশার কয়েল
https://www.banglanews24.com/ - ৫ দিন, ১৩ ঘণ্টা আগে
ট্রেন্ডিং