(প্রিয়.কম) বৃষ্টির হানায় থমকে গেছে নগর জীবন। অনাকাঙ্ক্ষিত `নভেম্বর রেইনে'র প্রভাব পড়েছে খেলার মাঠেও। বুধবার সকাল থেকে ঝরে যাওয়া ঝিরিঝিরি বৃষ্টির কারণে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দুটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবারও থামেনি প্রকৃতির কান্না। তবে এমন আবহাওয়ার মধ্যেও পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা লালবাগ কেল্লার সামনে গলি ক্রিকেট খেলে দর্শক মাতিয়ে রাখলেন বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসের ক্রিকেটাররা। 

থেকে থেকে বৃষ্টি নেমেছে। যদিও এটা বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। সাকিব আল হাসান, শহীদ আফ্রিদি, এভিন লুইস, কুমার সাঙ্গাকারা, কাইরন পোলার্ড, সুনীল নারাইন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আবু হায়দার রনিরা এদিন আরও একবার তাদের শৈশবে ফিরে গিয়েছিলেন। গলির ক্রিকেট খেলে মাতিয়ে রেখেছিলেন পুরান ঢাকার ক্রিকেটমোদীদের। এই ম্যাচে সাকিব-আফ্রিদিদের প্রতিপক্ষ ছিল পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওমেরা এলপিজি।

একের পর এক ছয় হাঁকিয়েছেন ঢাকার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ছবি: প্রিয়.কম

একের পর এক ছয় হাঁকিয়েছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ছবি: প্রিয়.কম

সাকিব, সাঙ্গাকারা, পোলার্ড, আফ্রিদিদের দেখতে দর্শকদের উপচে পড়া ভিড় ছিল লালবাগ কেল্লার সামনে। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সাকিবরা প্রতিটি বলই বাউন্ডারিতে পাঠাতে চাচ্ছিলেন। দর্শকরাও চাচ্ছিলেন প্রতিটি বল যেন বাউন্ডারি হয়। কারণ বলটি যে ধরতে পেরেছেন সেটাই তার হয়ে গেছে। ম্যাচ শেষে উপস্থিত দর্শকদের মাঝে ব্যাট, বল, ক্যাপ এবং জার্সি বিতরণ করেন ঢাকা ডাইনামাইটসের খেলোয়াড়রা।   

এমন একটি ম্যাচে অংশ নিতে পেরে উচ্ছ্বসিত ঢাকার তরুণ অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। বলছেন, ‘আজ অনেকদিন পর সেই ছোট বেলার স্বাদটা পেলাম। এত দর্শকের সামনে খেলতে পারলাম, ঢাকাবাসী আমাদের সমর্থন করছে এটা আমাদের জন্য অনেক বড় ব্যাপার। আমরা আশা করব ঢাকাবাসী সব সময় আমাদের সমর্থন করবে।’

এমন ম্যাচ দলকে চাঙ্গা করে জানিয়ে মোসাদ্দেক বলেন, ‘এমন একটি প্রোগ্রাম সব সময় একটি দলকে চাঙ্গা করে। এটা দলের জন্য সুবিধা। এক সাথে হওয়ার ক্ষেত্রে এমন প্রোগ্রাম বড় ভূমিকা রাখে। আমি মনে করি এমন ইভেন্ট যদি সব সময় করে এবং আমরা এমন কিছু পাই তাহলে দলের জন্য অনেক ভাল হবে এবং পারফরম্যান্স করতেও আমাদের অনেক বেশি সুবিধা হবে।’

পুরো দল নিয়ে লালবাগ কেল্লার সামনে ঢাকা ডায়নামাইটস। ছবি: সংগৃহীত

পুরো দল নিয়ে লালবাগ কেল্লার সামনে ঢাকা ডায়নামাইটস। ছবি: প্রিয়.কম

চার-ছয়ে দর্শক মাতিয়েছেন পাকিস্তান অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদিও। এমন আয়োজনে আফ্রিদিও মুগ্ধ, ‘বেশিরভাগ ক্রিকেটারই এ ধরনের ক্রিকেট দিয়ে তাদের ক্যারিয়ার শুরু করেছে। আমার মনেহয় এমন আয়োজনের জন্য আমাকে অবশ্যই ঢাকার মালিক, কোচ, ম্যানেজম্যান্টসহ সবাইকে কৃতিত্ব দিতে হবে। আমার মনে হয় এটা দারুণ একটি উদ্যোগ এবং এটা নিয়মিতভাবে আয়োজন করা উচিত।’

এখানে শুধু ক্রিকেটের ব্যাপারটিই দেখছেন পাকিস্তানের সাবেক এই অলরাউন্ডার। আফ্রিদি বলেন, ‘এটা শুধু ক্রিকেটের ব্যাপার না। আমরা নির্দিষ্ট গোষ্ঠিতে বাস করি বলে সামাজিকতার ব্যাপার থাকে। যেখানে আমাদের অনেক ভক্ত আছে। ভক্তরা তাদের প্রিয় ক্রিকেটারকে দেখতে চায়। আমি সব সময়ই বাংলাদেশে ক্রিকেট খেলতে ভালবাসি। এটা আমার দ্বিতীয় ঘর। এখানকার মানুষদের কাছ থেকে সব সময়ই আমি সমর্থন, সম্মান ও ভালবাসা পাই। এখানকার খাবার পাকিস্তানের মতোই।’