(প্রিয়.কম) শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে দুদিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে পৌর শহর ও আটটি ইউনিয়নের বাড়িঘর থেকে পানি নামলেও এখনো ৮ শ’ হেক্টর আমনের বীজতলা ও রোপা আমন ধানের জমি পানির নিচে রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার ও শনিবার দুদিনের টানা বর্ষণ ও  উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে উপজেলার ভোগাই নদীর ১০টি  স্থানের প্রায় ২ হাজার ৯১০ ফুট ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে যায়। এতে পৌরসভাসহ আটটি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে প্রায় পাঁচ হাজার ৬০০ পরিবার পানিবন্ধী হয়ে যায়।

তবে রোববার ভোর থেকেই ওই সব অঞ্চলের পানি নেমে গেছে। কিন্তু এখনো ৮ শ’ হেক্টর আমনের বীজতলা ও রোপা আমন ধানের ক্ষেত পানির নিচে রয়েছে।

তবে, নালিতাবাড়ী উপজেলার যোগানিয়া, কলসপাড়, মরিচপুরান ও ঝিনাইগাতী উপজেলার ঝিনাইগাতী ইউনিয়নের কিছু অংশ, হাতিবান্দা, ধানশাইল ইউনিয়নের কিছু নিন্মাঞ্চল গ্রাম নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। নালিতাবাড়ী উপজেলা খালভাঙ্গা গ্রামের কৃষক দুলাল মিয়া বলেন, ঘর বাড়ি থেকে পানি নেমে গেছে। তবে জমিতে পানি আছে।

তা ছাড়া নদীর পানিতে আমনের খেতে বালু এসে ভরে গেছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরিফ ইকবাল বলেন, এখনও এখনও ৮ শ’ হেক্টর আমনের বীজতলা ও রোপা আমন পানির নিচে রয়েছে। তবে দুই একদিনের মধ্যে পানি নেমে যাবে। ফলে কৃষকের কোন ক্ষতি হবে না।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল