(প্রিয়.কম) শেরপুরে শ্রীবরদীর সীমান্তবর্তী হালুয়াহাটি গ্রামের ধান ক্ষেত থেকে একটি মৃত বন্যহাতি উদ্ধার করেছে বন বিভাগ। 

১২ আগস্ট শনিবার সকালে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে মৃত হাতিটি উদ্ধার করে বন বিভাগ। পরে ময়নাতদন্ত শেষে দুপুরে ঘটনাস্থলের পাশেই হাতির মৃতদেহটি মাটি চাপা দেওয়া হয়। 

এলাকাবাসী জানায়, ১০ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে একদল বন্যহাতি পাহাড় থেকে নেমে হালুয়াহাটি গ্রামের বিভিন্ন ঘর-বাড়িতে হামলা চালায়। ওই সময় আব্দুল হাই নামের এক বৃদ্ধ কৃষক হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মারা যান। এছাড়া আঙ্গুরি বেগম নামে এক নারী এবং মাখন নামে সাত বছরের এক মেয়ে গুরুতর আহত হয়।

বন বিভাগের বালিজুড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম জানান, মৃত হাতিটি একটি পূর্ণবয়স্ক মাদি হাতি (নারী হাতি)। বয়স আনুমানিক ৩০/৩৫ বছর হবে। হাতিটি গর্ভবতী ছিল।

তিনি বলেন, ১০ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাতে বন্যহাতির আক্রমণে শেরপুরের শ্রীবরদীর হালুয়াহাটি গ্রামের এক কৃষক নিহত ও চারজন আহত হওয়ার নিকটবর্তী এলাকা থেকে হাতিটির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই রাতে বন্যহাতির একটি দল পাহাড় থেকে লোকালয়ে নেমে এসে হালুয়াহাটি গ্রামের ঘরবাড়ীতে হানা দিয়ে ধান-চাল খেয়ে সাবাড় করে। সেখানে একটি বস্তায় রাখা ইউরিয়া সারও খেয়ে ফেলে বন্যহাতির দলটি।

বন বিভাগের কর্মকর্তাদের ধারণা, বন্যহাতিটি বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যেতে পারে।

প্রিয় সংবাদ/ইতি