(প্রিয়.কম) সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার রায়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা যে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন তা ইতিহাসের সঙ্গে সাংঘর্ষিক বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

১৩ আগস্ট রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে মিট দ্য রিপোর্টস অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, 'ষোড়শ সংশোধনীর ৭৯৯ পৃষ্ঠার রায়ের পর্যবেক্ষণে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোনো একক ব্যক্তির চেষ্টায় হয়নি’- প্রধান বিচারপতির এ মন্তব্য ইতিহাসের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এই মন্তব্য বাংলাদেশের ইতিহাসকে বিকৃত করার সামিল। মামলার পর্যবেক্ষণে এই ধরনের মন্তব্য অপ্রাসঙ্গিক।'

যিনি এমন মন্তব্য করেছেন তার এই আচরণ অসদাচারণের পর্যায়ে পড়ে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির দেওয়া রায় খাতিয়ে দেখবার অবকাশ আছে এবং এর এখতিয়ার একমাত্র রাষ্ট্রপতির। এর বিচারের অথরিটি রাষ্ট্রপতির।’

যেহেতু এটি বড় রায় (৭৯৯ পৃষ্ঠা) তাই কোন কোন বিষয় রিভিউ করা হবে সেইগুলো পুঙ্খানুপুঙ্খ শনাক্ত করা হচ্ছে। এর জন্য কিছু সময় প্রয়োজন। এছাড়া সুপ্রিম কোর্টের বিদ্যমান আইন অনুয়ায়ী যদি কোনো রায়ের কোনো শব্দ বা মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার আবেদন করতে হয় তা রিভিউ আবেদনের সঙ্গে করতে হয়। সেটাই করা হবে বলেও জানান তিনি। 

উল্লেখ্য, বিচারক অপসারণ ক্ষমতা সংসদে ফিরিয়ে এনে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর সংশোধন হয় সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদ যা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী নামে পরিচিত। ৩ জুলাই এই সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে আপিল বিভাগ আর ১ আগস্ট প্রকাশ হয় পূর্ণাঙ্গ রায়।

এই রায়ে ষোড়শ সংশোধনী ছাড়াও শাসন ব্যবস্থা, সংসদ, রাজনৈতিক সংস্কৃতি, ইতিহাস নিয়ে নানা মন্তব্য করা হয়। এতে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সরকার।

প্রিয় সংবাদ/সজিব