বস্তিগুলোকে বাহারি রঙের শৈল্পিক ছোঁয়ায় বদলে দিলো কারা

বস্তির অলিগলি, দেয়াল ও টিনের চালগুলো দৃষ্টিকাড়া রঙের প্রলেপে হয়ে উঠেছে রঙিন।

তাশফিন ত্রপা
সহ-সম্পাদক
১২ জুন ২০১৮, সময় - ১৬:৩৯

রাঙানো হলো ভারতের মুম্বাই শহরের বস্তিগুলো। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ভারতের মুম্বাই শহরের প্রায় ৪১ শতাংশ মানুষ বস্তিতে বসবাস করছেন। অনেকেই মনে করেন, বস্তি মানেই নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ। আর সে ধারণাকে পাল্টে দেওয়ার জন্য মাঠে নেমেছেন একদল সেচ্ছাসেবী। ঝকঝকে-তকতকে ও নজরকাড়া বাহারি নকশায় মুম্বাই শহরের বস্তিগুলোকে রাঙিয়ে তুলতে রংতুলি নিয়ে মুম্বাই শহরের একপ্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ছুটে চলেছেন তারা।

মুম্বাই শহরের রাঙানো বস্তি। ছবি: সংগৃহীত

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের মুম্বাইয়ের বেশ কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক মিলে শহরটির বস্তিগুলোকে রাঙিয়ে তোলার জন্য তারা গঠন করেছেন একটি অলাভজনক দল। ওই দলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘চাল রাং দে’, যার বাংলা অর্থ দাঁড়ায়- চলো রঙ দিই।

মুম্বাইয়ের বস্তি রাঙাতে ‘চাল রাং দে’ দলের কয়েকজন সদস্য। ছবি: সংগৃহীত

‘চাল রাং দে’ দলের সবাই মিলে শহরের বস্তিগুলোর টিনের চালগুলোতে এঁকে দিয়েছেন বিভিন্ন রঙের আলপনা, প্রলেপ। বস্তির অলিগলি ও দেয়ালে এঁকেছেন নানা রংবেরঙের নকশা। কোথাও-কোথাও আবার এই স্বেচ্ছাসেবী শিল্পীরা যোগ করেছেন দৃষ্টিকাড়া ম্যুরাল পেইন্টিং। এতে রংধনুর মতো ঝলমলে হয়ে উঠেছে মুম্বাই শহরের বস্তিগুলো।


স্বেচ্ছাসেবী দলটির রঙের বালতি। ছবি: সংগৃহীত

‘চাল রাং দে’ দলটির এই উদ্যোগের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন মুম্বাইয়ের বেশ কিছু বাসিন্দারাও। তারপর সবাই মিলে মে মাসের শেষের দিকে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে বস্তিগুলোকে মনের মাধুরী মিশিয়ে রঙ করেছেন। শহরেরে চারটি এলাকাজুড়ে ‘চাল রাং দে’ দলটি মোট ১২ হাজার ঘরকে বাহারি রঙের শৈল্পিক ছোঁয়া দিয়েছে।

প্রিয় জটিল/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
উৎসবের রং ঐতিহ্যের নকশা
উৎসবের রং ঐতিহ্যের নকশা
প্রথম আলো - ৫ দিন, ১৫ ঘণ্টা আগে
লাচ্ছা সেমাইয়ে কাপড়ের রং!
লাচ্ছা সেমাইয়ে কাপড়ের রং!
প্রথম আলো - ১ week আগে
ঈদের রং তাঁদের শাড়িতেও
ঈদের রং তাঁদের শাড়িতেও
প্রথম আলো - ১ week, ৫ দিন আগে
তাজমহলের আসল রং কী?
তাজমহলের আসল রং কী?
প্রথম আলো - ১ week, ৬ দিন আগে
সোনা মসজিদের রং এখন তামাটে
সোনা মসজিদের রং এখন তামাটে
বাংলা নিউজ ২৪ - ২ সপ্তাহ, ২ দিন আগে
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন