(প্রিয়.কম) জনপ্রিয় স্ট্রিমিং মিউজিক অ্যাপগুলোর মধ্যে সাউন্ডক্লাউড অন্যতম। তবে জনপ্রিয় হয়েও এখন পর্যন্ত ব্যবসার মুখ না দেখলেও সম্প্রতি আশার আলো দেখার পাশাপাশি নতুন জীবন পেতে যাচ্ছে সাউন্ডক্লাউড।

১১ আগস্ট শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে যে তারা নতুন তহবিল পেতে যাচ্ছে। এতে নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করবে কোম্পানিটি।

আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের জুলাইয়ে কোম্পানিটি ৪০ শতাংশ অর্থাৎ তাদের ১৭৩ জন কর্মীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়। আর এসবের মূলে ছিল আর্থিক সমস্যা। 

তবে কোম্পানিটিতে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখিয়েছে নিউ ইয়র্কের রাইনি গ্রুপ এবং সিঙ্গাপুরের তেমাসেক। এতে আশার আলো দেখতে পাচ্ছে সাউন্ডক্লাইড। কিন্তু বিনিয়োগের পরিমাণ কত হতে পারে তা জানা না গেলেও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বিনিয়োগের অঙ্কের পরিমাণ হয়তো ১৭০ মিলিয়ন হতে পারে।

এদিকে বিনিয়োগের পাশাপাশি নীতিনির্ধারণ পর্যায়েও পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে জনপ্রিয় এই মিউজিক স্ট্রিমিং সাইটটিতে। প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট ভার্জের প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার পদ থেকে সরে যাচ্ছেন অ্যালেক্স লুজাং। প্রতিষ্ঠানটির নতুন সিইও হিসেবে যোগ দেবেন ভিডিও শেয়ার ও আপলোডের ওয়েবসাইট ভিমিও এর প্রধান কেরি ট্রাইনর। তবে অ্যালেক্স লুজাং সাউন্ডক্লাউডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন এবং কোম্পানিটির কো-ফাউন্ডার এবং চিফ টেকনোলজি অফিসার এরিক কোম্পানির চিফ প্রোডাক্ট অফিসার।

অনলাইন অডিয়্যান্স ট্রাকিং ফার্ম সিমিলিয়ার ওয়েবের বরাত দিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয় সাউন্ডক্লাউডের সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৮৮ মিলিয়ন। 

এদিকে সাউন্ডক্লাউডের ডুবে যাওয়ার কারণ হিসেবে টেক ক্রাঞ্চ নামে প্রযুক্তিবিষয়ক অপর একটি ওয়েবসাইট জানিয়েছে, সাউন্ডক্লাউড তাদের অফিসের জন্য মাত্রাতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করতো। এ ছাড়া তাদের অর্থের অপচয়ের পরিমাণটিও ছিল বেশি। তাদের সাবস্ক্রিপশন মডেলটি সঠিক ছিল না এবং তাদের প্রতিযোগীরা এগিয়ে যাওয়ায় আপলোডকারীরা এই প্লাটফর্মটি ত্যাগ করছিল।

সাউন্ডক্লাউড জানিয়েছে, তাদের বার্ষিক রাজস্ব ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যদি তারা তাদের ব্যয় কমিয়ে এ ধারা অব্যাহত রাখতে পারে তবে তাদের পরবর্তীতে অন্য কারো কাছ থেকে তহবিলের জন্য চেয়ে থাকতে হবে না।

সূত্র: ভার্জ, রয়টার্স

প্রিয় টেক/মিজান