ছবি সংগৃহীত

মতলব উত্তরের উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে তালা!-দৈনিক ইত্তেফাক

স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চলমান এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে বলে এসব উপ-কেন্দ্রগুলো তালা বন্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৯:১৭ আপডেট: ১৩ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৩২
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৯:১৭ আপডেট: ১৩ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৩২


ছবি সংগৃহীত

সংগৃহীত ছবি

(প্রিয়.কম) স্বাস্থ্য সেবাকে গ্রামীণ সাধারণ মানুষদের হাতের নাগালে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষে সরকার ইউনিয়ন পর্যায়ে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র নির্মাণ করলেও চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার সাধারণ রোগীরা তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চলমান এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে বলে এসব উপ-কেন্দ্রগুলো তালা বন্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার ‘মতলব উত্তরের উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে তালা! চিকিত্সকরা পরীক্ষা কেন্দ্রে’ শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে এ তথ্য।

উপজেলার ২৫ কেন্দ্রে পিএসসি, ১১ কেন্দ্রের জেএসসি ও জেডিসি, আট কেন্দ্রের এসএসসি ও দাখিল, পাঁচ কেন্দ্রের এইচএসসি ও আলিম, এক কেন্দ্রের ফাজিল ও এক কেন্দ্রে কামিল পরীক্ষাগুলোতেও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও ফার্মাসিস্টরাই দায়িত্ব পালন করে থাকেন।

জানা যায়, প্রতিটি কেন্দ্রে একজন এমবিবিএস মেডিক্যাল অফিসার নিয়োগ দেওয়া থাকলেও কর্মদিবসের বেশি দিনই রোগীরা তাকে পান না বলে অভিযোগ রয়েছে। রোগীদের নির্ভর করতে হয় উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও ফার্মাসিস্টদের উপর। উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও ফার্মাসিস্টরাই এখন দায়িত্ব পালন করছেন এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে। ফলে দরিদ্র পরিবারের ও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের উপর নির্ভরশীল সাধারণ মানুষগুলো পড়ছে দুর্ভোগে।

মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্বরত) ডা. একেএম মাহবুবুর রহমান বলেন, সরকারি নির্দেশনা থাকায় পরীক্ষা কেন্দ্রে উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও ফার্মাসিস্টদের দেওয়া হয়েছে।

নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয় (মতলব-পাঁচ) কেন্দ্র সচিব একেএম তাজুল ইসলাম বলেন, আমার এখানে কোনো পরীক্ষার্থী এখনো অসুস্থ হয়নি।

প্রিয় সংবাদ/মেহেদী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...