(প্রিয়.কম) নাট্যাঙ্গনের মেধাবী তরুণ নাট্য নির্দেশক সুদীপ চক্রবর্তী যুক্তরাজ্য সরকার প্রদত্ত ‘কমনওয়েলথ স্কলারশিপ ২০১৭’ পেয়েছেন। চলতি সেপ্টেম্বর থেকে গোল্ডস্মিথস্ ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স বিভাগে ‘পারফর্মিং বাংলাদেশ: আইডেন্টিটি, ভায়োলেন্স এন্ড কনসিলিয়েশন (১৯৭১-২০১৩)’ শিরোনামে পিএইচডি অধ্যয়ন শুরু করবেন।

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে যুক্তরাজ্যে যাবেন তিনি। নাট্যকলা অধ্যয়নে বাংলাদেশ থেকে কমনওয়েলথ স্কলারশিপ পাওয়া প্রথম ব্যক্তি তিনি। আর বলেন, ‘এটি আমার জন্য আনন্দের এবং গৌরবের। সবাই দোয়া করবেন যেন বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারি।’

সুদীপ চক্রবর্তী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স বিভাগে শিক্ষকতা করছেন। ২০১৪ সাল থেকে প্রায় তিন বছর তিনি বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। বাংলাদেশ, ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস, যুক্তরাষ্ট্র প্রভৃতি দেশে আন্তর্জাতিক নাট্য কর্মশালা, সেমিনার ও নাট্যোৎসবে অংশ নিয়ে নতুন ও ভিন্ন মাত্রার শিল্পরীতির সাথে পরিচিত হন।

তার ২৫টি নির্দেশিত নাটকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- চাকা, রক্তকরবী, দক্ষিণা সুন্দরী, প্রণয় যমুনা, মহাজনের নাও, লাল জমিন, ফণা, গহনযাত্রা, ম্যাকবেথ, শেক্সপিয়র সপ্তক, জ্যোতিসংহিতা, বিভাজন, পাইতাল প্রভৃতি।

বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন নাট্যদল প্রযোজিত প্রায় ৫০টি নাটকের মঞ্চ, আলো, পোশাক, দ্রব্য ও মুখোশ পরিকল্পনা করেছেন তিনি। ২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রাঙ্কলিন বিদ্যালয়ের আমন্ত্রণে নিউ জার্সি কিন বিশ্ববিদ্যালয় ও নিউ ইয়র্ক সিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং ২০১৫ সালে কুইন মেরি ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের অ্যাপ্লাইড পারফরম্যান্স বিভাগের আমন্ত্রণে বক্তৃতা ও কর্মশালা পরিচালনা করেন তিনি।

প্রিয় বিনোদন/গোরা