(প্রিয়.কম) দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক থাকার পরও প্রেমিক বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তার বাড়িতে অবস্থান ও অনশন করে দাবি আদায় করে নিয়েছে শিউলি (২০) নামের এক তরুণী। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ছোট খোচাবাড়ি গুচ্ছগ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, সদর উপজেলার ছোট খোচাবাড়ি গুচ্ছগ্রামের মতিউর রহমানের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে শিউলীর সাথে একই গ্রামের সফিকুলের ইসলামের ছেলে নেহারুলের দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক থাকলেও প্রেমিক সফিক হঠাৎই মেয়েটিকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। ঘটনায় শিউলি বিয়ের দাবিতে প্রেমিক নেহারুলের বাড়িতে অবস্থান নেয় এবং অনশন শুরু করে। অবস্থা বেগতিক দেখে ছেলের পরিবার বিষয়টির মীমাংসা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে প্রেমিক নেহারুল আত্মগোপনে চলে যায়। বিষয়টি স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে জনপ্রতিনিধিরা ঘটনার সমাধানের চেষ্টা চালান। পরে দীর্ঘ আলোচনা ও বাকবিতণ্ডা এবং টানা তিন দিন অনশনের পর অবশেষে ৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

বিয়ে করতে না চাওয়ার কারণ হিসেবে বর নেহারুল বলেন, শিউলির সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিল ঠিকই কিন্তু সংসার চালানোর সক্ষমতা না থাকায় পরে বিয়ে করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু শিউলি আমাদের বাড়িতে চলে আসে এবং অনশন শুরু করে। তবে নববধূ শিউলি জানান, আমায় বিয়ে করতে অস্বীকার করার পর এছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ইউপি চেয়ারম্যান পয়গাম আলী বলেন, মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছিল। তবে কিন্তু ছেলের পরিবার বিয়েতে রাজি হচ্ছিল না। অবশেষে  বৃহস্পতিবার ভোর রাতে দুই পরিবারের সম্মতিতে উভয়ের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ