(প্রিয়.কম) ঈদুল আজহায় ঘরমুখো মানুষের ঢল নেমেছে আরিচা-পাটুরিয়া ঘাটে। ৩১ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকাল থেকে লঞ্চ ও ফেরিতে উপচেপড়া ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সারি সারি যানবাহন। বিভিন্ন স্থানে থেমে থেমে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে উথলি পাটুরিয়া রাস্তার সংযোগ থেকে ঘাট০০ পর্যন্ত দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ওই মোড় থেকে পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার এবং আরিচা ঘাট পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার রাস্তা দিনব্যাপী থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে বাধ্য হয়ে অনেক যাত্রী পায়ে হেটে, রিক্সা, ভ্যান, অটো, সিএনজি অটো রিক্সায় উঠে ঘাটে পৌছাতে বাধ্য হয়।

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা- কাজিরহাট রুটে লঞ্চগুলোতে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। আরিচা- কাজিরহাট রুটের স্পিডবোটগুলোতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে নদী পার হয়েছে অনেক যাত্রী।

taffiq-jam-Dhaka-aricha

আরিচা-পাটুরিয়া রুটের লঞ্চগুলোতেও উপচেপড়া ভিড়। ছবি: সংগৃহীত

এদিকে ঢাকা, সাভার, গাজীপুরের বিভিন্ন স্থান থেকে ছেড়ে আসা বিভিন্ন রুটের যানবাহনে যাত্রী উঠিয়ে দ্বিগুণ/তিনগুণ ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। যাত্রী ও বাস শ্রমিকদের মধ্যে ভাড়া নিয়ে কথা কাটাকাটিসহ মারামারির উপক্রম হতে দেখা গেলেও অদুরে দাঁড়িয়ে থাকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজনদের নিরব থাকতে দেখা গেছে। ঢাকা- আরিচা ও পাটুরিয়া মহাসড়কে যানজটের অবনতি ঘটে সকালে, দুপুরে কয়েক ঘণ্টা স্বাভাবিক হলেও আবার বিকেলের দিকে চরম আকার ধারণ করে। যানজট পরিস্থিতি মোকাবেলায় মালবাহী ট্রাকগুলোকে উথলি পাটুরিয়া মোড় থেকে আরিচা মুখি সড়কে এবং উথলি-আড়পাড়া বাইপাস সড়কে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয়। কার, মাইক্রোবাসসহ ছোট গাড়িগুলোকে টেপড়া থেকে পাটুরিয়া ৫ নং ঘাট পর্যন্ত বিকল্প সড়কে চলতে বাধ্য করা হয়। প্রায় ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ওই সড়কের প্রায় পুরোটাই ছোট গাড়িতে ঠাসা ছিল।

এদিকে আরিচা ও পাটুরিয়া ঘাটে নাম ধারি শ্রমিক সংগঠনের সদস্যরা এ রুটে চলাচলরত যানবাহন থেকে ২০০ থেকে ৪০০ টাকা অন্যান্য রুটের বাস থেকে ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করেছে বলে বাস শ্রমিকরা অভিযোগ করেছেন।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল