(প্রিয়.কম) জাতীয় দলের জার্সিতে লিওনেল মেসির গল্পটা আলাদা। তার ভক্তদের অনেকে এটাকে দুর্ভাগ্য বলেও মানেন। কিন্তু বার্সেলোনার জার্সিতে লিওনেল মেসি বরাবরই দুর্বার। মঙ্গলবারও তার প্রমাণ দিলেন এলএম টেন! তার অসাধারণ পারফরম্যান্সের সৌজন্যে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে বার্সেলোনা ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে জুভেন্টাসকে।

আর্জেন্টিনা থেকে ফিরে এস্পানিওলের বিপক্ষে লা লিগাতে হ্যাটট্রিক করেছিলেন মেসি। তবে মঙ্গলবার ছিল শক্তিশালী জুভেন্টাসের বিপক্ষে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ। এদিনও সব আলো নিজের করে নিলেন বার্সেলোনার এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার।

ন্যু ক্যাম্পে ইতালিয়ান জায়ান্টদের বিপক্ষে একাই দুই গোল করেন লিওনেল মেসি। ম্যাচের ৪৫ মিনিটে প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক জিয়ানলু্ইজি বুফনের বিপক্ষে ৬৯ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন কাতালানদের প্রাণভোমরা। এর আগে ৫৬ মিনিটে ইভান রাকিটিচের করা গোলটিতেও ছিল লিওনেল মেসির অ্যাসিস্ট!

২০০৪ সাল থেকেই বার্সেলোনার সিনিয়র দলের সদস্য লিওনেল মেসি। তার সময়েই অসাধারণ সব সাফল্যের গল্প রচনা করে কাতালানরা। পরিচিতি পায় ভিন্ন গ্রহের ক্লাব হিসেবেও! এর পেছনের নায়ক মেসিই। যে কারণেই এলএম টেনকে বলা হয় আধুনিক ফুটবলের ক্ষুদে জাদুকর।

ফুটবল মাঠে একের পর এক ইতিহাস গড়া মেসি এদিনও গড়লেন নতুন এক কীর্তি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে ভিন্ন ভিন্ন ২৭টি ক্লাবের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ড গড়লেন তিনি। এই তালিকায় তার উপরে রয়েছেন আরও তিন জন। তারা হলেন রাউল গঞ্জালেজ (৩৩), ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (৩১) এবং  জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ (২৯)। আর ইউরোপ সেরার দুই আসর মিলিয়ে অর্থাৎ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং ইউরোপিয়ান সুপার কাপে তার মোট গোল দাঁড়াল ৯৯। সেঞ্চুরি থেকে এক গোল দূরে! যেভাবে ছুটছেন, কোথায় থামবেন এই মেসি?

সূত্র : বিবিসি, মার্কা

প্রিয় স্পোর্টস/ শান্ত মাহমুদ