মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবোরধসংক্রান্ত স্মারকে স্বাক্ষর করছেন। ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন-চীন বাণিজ্য যুদ্ধ: চীনা পণ্যে ট্রাম্পের ৬০ বিলিয়ন ডলার শুল্ক আরোপের ঘোষণা

চীন বলেছে, এর পাল্টা জবাবে তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে এবং মার্কিনিদের সঙ্গে যেকোনো বাণিজ্য যুদ্ধে তারা শেষ পর্যন্ত লড়াই করবে।

মোঃ আরিফুল ইসলাম
মুখ্য কর্মকর্তা, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক
প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০১৮, ১৭:০৬ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০
প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০১৮, ১৭:০৬ আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৮, ১২:০০


মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবোরধসংক্রান্ত স্মারকে স্বাক্ষর করছেন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কয়েক বছর ধরে চীনের বিরুদ্ধে মেধাস্বত্ব চুরির অভিযোগের জবাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চীন থেকে আমদানিকৃত পণ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলার শুল্ক আরোপ ও সে দেশে চীনা বিনিয়োগ সীমিত করার ঘোষণা দিয়েছে। 

হোয়াইট হাউস জানায়, চীনা রাষ্ট্র পরিচালিত অর্থনীতির বিষম প্রতিযোগিতা মোকাবেলায় এ পদক্ষেপ প্রয়োজনীয় ছিল।

চীন বলেছে, এর পাল্টা জবাবে তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে এবং মার্কিনিদের সঙ্গে যেকোনো বাণিজ্য যুদ্ধে তারা শেষ পর্যন্ত লড়াই করবে ।

এ ঘোষণার পর মার্কিন শেয়ার বাজারে বৃহস্পতিবার নিম্নমুখী প্রভাব পড়তে শুরু করে। ডোজনসে দিন শেষ হয় ২৩৯৫৭.৮৯-তে, পতন হয় ৭২৪.৪২ পয়েন্ট, যা শতকরা ২.৯% এবং পঞ্চম সর্বোচ্চ পতন এটি। এ ছাড়া প্রযুক্তি নির্মাতা নাসডাকের শেয়ার নিম্নমুখী ছিল ২.৪%।

অবোরধসংক্রান্ত স্মারক স্বাক্ষরকালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘ঐকমত্যে পৌঁছার জন্য চীন ও মার্কিন আলোচনা চলছে, যাতে তারা মার্কিন কোম্পানিগুলোর জন্য পরস্পর লাভজনক বাণিজ্যের শর্ত খুঁজে পান।

২২ মার্চ, বৃহস্পতিবার সকালে এক ব্রিফিংয়ে হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা জানান, চীনা পণ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি শুল্ক আরোপ করা হতে পারে, যেটি ৫০ বিলিয়ন ডলার থেকে শুরু হবে।

শুল্ক আরোপের পেছনের কারণ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আগস্টে চীনা নীতি তদন্তের ঘোষণা দেন। হোয়াইট হাউস জানায়, তদন্ত পর্যালোচনায় তারা বিভিন্ন ধরনের অসমতা লক্ষ করে, যার মধ্যে বিদেশি মালিকানা স্বত্বে বাধা আরোপ, যেটি বিদেশি কোম্পানিগুলোকে চাপ প্রয়োগ করে প্রযুক্তি স্থানান্তর করতে।

এ ছাড়া মার্কিন কোম্পানিগুলোর জন্য চীনের বৈষম্যমূলক শর্তারোপ, মার্কিন কৌশলগত শিল্পে চীনা বিনিয়োগ এবং সাইবার আক্রমণ পরিচালনা ও সমর্থন দরকার।

হোয়াইট হাউস জানায়, ২৫% শুল্ক আরোপ করা হতে পারে—এমন এক হাজার পণ্যের তালিকা করা হয়েছে।

হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চীনা বিনিয়োগ সীমিত করার পথ খুঁজে বের করবে এবং সেই সঙ্গে এই বৈষম্যমূলক বাণিজ্য শর্তের বিষয়ে ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশনে চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনবে।

আমেরিকার শীর্ষ বাণিজ্য আলোচক রবার্ট লাইটিজারের মতে, আমেরিকার ভবিষ্যৎ অর্থনীতির কাছে তার প্রযুক্তি রক্ষা করা শোচনীয়। 

চীনের প্রতিক্রিয়া

২২ মার্চ, বৃহস্পতিবার চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, তারা মার্কিন নতুন শুল্ক আরোপের পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত। চীনের বৈধ অধিকার ও স্বার্থে আঘাত হানলে তারা চেয়ে চেয়ে দেখবে না, তারা তাদের বৈধ অধিকার ও স্বার্থ রক্ষায় প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করবে, চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ কথা জানায়।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশনের ২০১৪ সালের চীনা পণ্যের, বিশেষ করে সোলার প্যানেল ও উইনড টাওয়ারের ভর্তুকিবিরোধী শুল্ক আইন সম্পূর্ণ মানে না । এটিই প্রমাণ করে যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড অরগানাইজেশনের নিয়ম লঙ্ঘন করছে। এর ফলে বহুমুখী আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

এ যুদ্ধে সম্ভাব্য ক্ষতির সম্মুখীন হবে কে?

এটি বাস্তবায়ন করা হলে চীনের পাশাপাশি মার্কিন অর্থনীতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে, বিশেষ করে মার্কিন কৃষি এবং বায়বাকাশে। ২০১৬ সালে মার্কিন পণ্য সয়াবিন, শস্য, শূকর মাংস এবং বিমান রপ্তানির তৃতীয় বৃহত্তম বাজার ছিল চীন।  ইতিমধ্যে মার্কিন শেয়ার বাজারে ধস নামতে শুরু করেছে। মার্কিন বিমান নির্মাতা কোম্পানি বোয়িংয়ের ৫% দরপতন ঘটেছে।

মার্কিন ব্যবসায়িক দলগুলো প্রশাসনিক কৌশলের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। তারা এ সমস্যার সুষ্ঠু সমাধান চান কোনো একক অবরোধ বা শুল্ক নয়, যা ভালোর চেয়ে ক্ষতি ডেকে আনবে, বলেছেন, চীন-মার্কিন বিজনেস কাউন্সিলের সভাপতি জন ফ্রিসবাই।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রতি বছর চীন থেকে প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি করে। আমদানির তুলনায় রপ্তানি কম হওয়াই দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ প্রায় ৩৭৫ বিলিয়ন ডলার।

বৃহস্পতিবার ডোনাল্ড ট্রাম্প বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ শিগগিরই কমিয়ে ১০০ বিলিয়ন ডলারে আনার আহ্বান জানান চীনের প্রতি। তবে চীন এ বাণিজ্য যুদ্ধে কেউ লাভবান হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/হিরা/আজাদ চৌধুরী

 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...