কুড়িগ্রামে কনকনে শীত, অচল স্বাভাবিক জনজীবন

বন্যায় বেশিরভাগ কাথা বালিশ ও বিছানা ভেসে গেছে। বর্তমানে তীব্র শীতে কষ্ট পেলেও কোন শীতবস্ত্র মেলেনি।

ইতি আফরোজ
সহ-সম্পাদক
০৫ জানুয়ারি ২০১৮, সময় - ১১:৫০

কনকনে শীত ও ঘন কুয়াশায় অচল স্বাভাবিক জনজীবন। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) কুড়িগ্রামে হিমেল হাওয়া আর কনকণে ঠান্ডায় প্রায় অচল হয়ে পড়ছে নদ-নদী তীরবর্তী এলাকার কয়েক লাখ মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। হিমশীতল বাতাস বাড়িয়েছে ঠান্ডার তীব্রতা।

সন্ধ্যা ও সকালে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মতো পড়ছে কুয়াশা। দিনের বেশির ভাগ সময় থাকছে কূয়াশার চাদরে ঢাকা। বেলা ১২টার আগে সূর্যের দেখা মিলছে না। হিমশীতল ঠান্ডায় কাবু হয়ে পড়ছে শিশু, নারী ও বৃদ্ধরা। দেখা দিচ্ছে ঠান্ডাজনিত রোগ ব্যাধি। শীতবস্ত্রের অভাবে বাড়ছে দুর্ভোগ। প্রচন্ড ঠান্ডায় কৃষক ও দিনমজুররা মাঠে কাজ করতে পারছে না। 

সদর উপজেলার শিবরাম গ্রামের ভিক্ষুক বায়েজীদ আলী জানান, বন্যায় বেশিরভাগ কাথা বালিশ ও বিছানা ভেসে গেছে। বর্তমানে তীব্র শীতে কষ্ট পেলেও কোনো শীতবস্ত্র মেলেনি।

একই গ্রামের দিনমজুর আব্দুল মজিদ ও রফিকুল জানান, কনকনে ঠান্ডা আর হিমেল বাতাসের কারণে কৃষিকাজ করা যাচ্ছে না। জেলা ত্রাণ অফিস সুত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত ৫৭ হাজার কম্বল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা বিতরণ করা হচ্ছে।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সূত্র: বাসস

প্রিয় সংবাদ/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন