প্রেমিককে কেটেকুটে বারবিকিউতে পরিবেশন!

প্রেমিককে খুন করার পর তার মাংস বারবিকিউ করে প্রতিবেশীদের খাওয়ানোর দায়ে অভিযুক্ত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
১৬ মে ২০১৮, সময় - ১১:১১

খুনের দায়ে অভিযুক্ত কেলি এম. ককরান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) প্রেমিককে খুন করার পর তার মাংস বারবিকিউ করে প্রতিবেশীদের খাওয়ানোর দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী অভিযুক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্ট।

কেলি এম. ককরান নামের ওই নারীর বয়স ৩৪ বছর; তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানার বাসিন্দা। নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানিয়েছে, তিনি উচ্চ মাত্রার হেরোইন ইনজেকশন দিয়ে অচেতন করেন নিজের স্বামীকে। এরপর মুখে বালিশচাপা দিয়ে তাকে হত্যা করেন। এমনকি সাবেক এক প্রেমিককে কেটেকুটে তার মাংস বারবিকিউ করে প্রতিবেশীদের পরিবেশন করেন তিনি।

স্বামী জেসন ককরানকে হত্যার দায়ে গত মাসে ৬৫ বছরের জেল হয় কেলির। ইতোমধ্যে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করছেন তিনি। ২০১৪ সালে সাবেক প্রেমিক ক্রিস রেগানকে হত্যার পর দেহ টুকরো টুকরো করে ফেলার অপরাধে তার এই সাজা হয়।

কেলি আরও অন্তত ৯টি হত্যার সঙ্গে জড়িত বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার পরিবার জানিয়েছে, এসব মানুষকে খুন করে বিভিন্ন স্থানে পুঁতে রেখেছেন কেলি। এ ছাড়া ক্রিস রেগানকে হত্যার পর তার মাংস প্রতিবেশীদের পরিবেশন করেন কেলি, এটাও জানা যায় তার পরিবার থেকেই।

রেগান হঠাৎ করে নিরুদ্দেশ হয়ে যাওয়ার পর কেলি ও তার স্বামীর সঙ্গে কথা বলে পুলিশ। সে সময়ে জানা যায়, রেগানের সঙ্গে পরকীয়া করছিল কেলি। এরপর ২০১৬ সালে কেলির স্বামী মারা যাওয়ার পর আবারও সন্দেহের তীর গিয়ে পড়ে কেলির ওপর। তদন্তে জানা যায়, তিনিই নিজের স্বামীকে খুন করেন।

কেলি স্বীকার করেন, তিনি ও তার স্বামী রেগানকে নিজেদের বাড়িতে নিয়ে আসেন, গুলি করেন এবং তার দেহ টুকরো করেন। এরপর তার দেহ জঙ্গলে ফেলে দেওয়া হয়। কেলি ও তার স্বামী প্রতিজ্ঞা করেন, তাদের দুজনের মাঝে তৃতীয় কেউ (পরকীয়া করতে) এলেই তাকে খুন করা হবে। কিন্তু রেগানকে খুন করার কারণে স্বামীর ওপর রাগ ছিল কেলির। এ কারণেই পরে তাকে হত্যা করেন তিনি।

প্রিয় জটিল/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন