বয়স ১২৮ বছর, বেঁচে থাকাটাই যার প্রধান কষ্ট!

কোকু ইস্তাম্বুলোভাকে বলা যায় পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক মানুষদের একজন। ১২৮ বছর বয়সী এই নারী বসবাস করছেন চেচনিয়ায়।

তাশফিন ত্রপা
সহ-সম্পাদক
১৬ মে ২০১৮, সময় - ২১:২১

কোকু ইস্তাম্বুলোভা।ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কোকু ইস্তাম্বুলোভাকে বলা যায় পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক মানুষদের একজন। ১২৮ বছর বয়সী এই নারী বসবাস করছেন চেচনিয়ায়। কিন্তু পৃথিবীতে আরেকটি দিন বেঁচে থাকাটাই তার জীবনের প্রধান কষ্ট। কোকু আর এ দীর্ঘজীবন বয়ে বেড়াতে চান না।

১৬ মে, বুধবার সংবাদমাধ্যম দ্য সানের প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১২টি দশক পার করে আসা কোকু দেখেছেন রাশিয়ার সর্বশেষ সম্রাট জার দ্বিতীয় নিকোলাসের শাসন। দেখেছিলেন দ্বিতীয় যুদ্ধ। শুধু তাই নয়, সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন ঘটেছে তারই চোখের সামনেই।

পাসপোর্টে দেখা যায় কোকু জন্মেছিলেন ১৮৮৯ সালে। ছবি: সংগৃহীত

দ্য সান-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কোকু তার পরিবার ও ছেলে-মেয়েদের সম্পর্কে তেমন কোনো তথ্য জানাতে চাননি। অবশ্য তিনি উল্লেখ করেন, ইতোমধ্যে চোখের সামনে হারিয়েছেন তার বেশ কয়েকজন সন্তানকে। সর্বশেষ বেঁচেছিলেন তার ১০৪ বছর বয়সী মেয়ে তামারা। পাঁচ বছর আগে তামারাও মারা যান। এখন কোকু চেচনিয়ার একটি গ্রামে একাই বসবাস করছেন। একা-একা বাড়ির বাগানে কাজ করেন। নিজের খাবার নিজেই তৈরি করেন। বয়সের ভারে একটি চোখ দৃষ্টি হারিয়েছে।

এক চোখের দৃষ্টি চলে গেছে কোকুর। ছবি: সংগৃহীত

কোকু সংবাদমাধ্যমটিকে বলেন, ‘চারপাশে মানুষকে দেখি, আয়ু বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন কিছু করছেন। ব্যায়াম করছেন, নিয়মমাফিক চলছেন, পরিমিত খাবার খাচ্ছেন। কিন্তু আমর এসব ব্যাপারে কোনো ধারণা নেই। আমি এটাও জানি না যে, কীভাবে নিজের শরীর ফিট রাখতে হয়।’

প্রিয় সংবাদ/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


স্পন্সরড কনটেন্ট
জনপ্রিয়
আরো পড়ুন