নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে মামলা

মানবজমিন প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সহকারী জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক শিউলী রানী দাসের আদালতে গুলজার হোসেন খান নামে এক বিএনপি কর্মী মামলাটি করেন। শুনানি শেষে মামলাটি গ্রহণ করে আগামী ১৯শে নভেম্বর আদালতে হাজির হয়ে জবাব দিতে জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতাদের সমন জারি করা হয়েছে। বুধবার রাতেই আদালতের সমন হাতে পেয়েছেন মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ। তবে জেলার নেতৃবৃন্দ এ ব্যাপারে এখনও কোন কিছু জানেন না। মামলায় বিবাদী করা হয়েছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ জেলা ও মহানগর বিএনপির ৫ নেতাকে। তারা হলেন- মহানগর বিএনপি সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। বুধবার সন্ধ্যার পর মামলার বিষয়টি প্রচার হতে থাকলে বিএনপির নেতা কর্মীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। মামলায় বিএনপির কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আদালতের আদেশ চাওয়া হয়েছে। গত বছরের ২৩শে মার্চ ২০৫ সদস্যের নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি এবং গত ৩০শে অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির  ১৫১ সদস্য বিশিষ্ঠ কমিটি অনুমোদন দেয় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জেলা কমিটি গঠনের ১ বছর ৮ মাস এবং মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের ১৩ দিন পর এই মামলা বিএনপি নেতাকর্মীদের মনে প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।  মামলায় বিএনপি কর্মী গুলজার হোসেন খান উল্লেখ করেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। তিনি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের অধিভুক্ত এলাকা নিয়ে মহানগর কমিটি গঠনের কথা থাকলেও অভিভুক্ত এলাকার বাইরে গিয়ে বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের কমিটিতে পদায়িত করা হয়েছে। একই ভাবে সিটি করপোরেশনের বাইরের নেতাকর্মীদের নিয়ে জেলা কমিটি গঠনের কথা থাকলেও সিটি করপোরেশনের ভেতরের এলাকার নেতাকর্মীদেরও জেলা কমিটিতে ঠাঁই দেয়া হয়েছে। ফলে কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে গঠনতন্ত্র অনুসরণ করা হয়নি বলে দাবি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মহানগর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, মহানগর কমিটিতে সহ সভাপতি পদে পদায়িত একজন নেতার অনুসারী হচ্ছেন মামলার বাদী গুলজার হোসেন। ওই নেতার পরামর্শেই এই মামলা করা হয়েছে। গতকাল সকালে মহানগর বিএনপির নবগঠিত কমিটির বেশির ভাগ নেতা যখন বিএনপি মহাসচিবকে সঙ্গে নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করছিল তখন দলের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা সরকারি দলের এজেন্টরা দলের সুনাম ক্ষুণ্ন করতে এই মামলা দায়ের করেছেন। বিষয়টি নিয়ে দলের মহাসচিবকে জানিয়ে তার পরামর্শ অনুযায়ী পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, মামলার বিষয়ে তিনি কোন কিছু জানেন না। মামলা সম্পর্কে জানানোর পর তিনি বলেন, একটি রাজনৈতিক দল তার নিজস্ব গঠনতন্ত্র অনুযায়ী চলে। সেক্ষেত্রে প্রশাসন বা আদালতের তেমন কিছু করার থাকে না। দল চলবে তার গঠনতন্ত্র অনুযায়ী। যিনি মামলা করেছেন তিনি কোন কারণে সংক্ষুব্ধ থাকতে পারেন। তিনি বলেন, অতি সম্প্রতি ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির বিষয়েও একটি মামলা হয়েছিল। আদালত এক্ষেত্রে তেমন কিছু করতে পারেনি।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত
আরও