মানবাধিকার দিবসে সিলেট বিএনপির র‌্যালি

মানবজমিন প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

সিলেট জেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আওয়ামী বাকশালী সরকার নিজেদের ফ্যাসীবাদী শাসন কুক্ষিগত করে রাখতে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যাবহার করে মানবাধিকার হরণের মহোৎসবে মেতে উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে ও বিএনপির কেন্দ্রীয় বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সিলেট জেলা বিএনপি আয়োজিত র‌্যালি পরবর্তী বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে র‌্যালি বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে নেতাকর্মীরা পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে র‌্যালি বের করে। র‌্যালিটি রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট প্রদক্ষিণ করে কোর্ট পয়েন্টে গিয়ে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ সমাবেশের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। র‌্যালিতে জেলা বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। র‌্যালি পরবর্তী সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা আহ্বায়ক কমিটির ১নং সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী শামীম। র‌্যালি ও বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা আহ্বায়ক কমিটির ১নং সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদ, আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী, অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী, ফখরুল ইসলাম ফারুক, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, এডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী, আব্দুল আহাদ খান জামাল, মাহবুবুল হক চৌধুরী, আবুল কাশেম ও শামীম আহমদ, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক একেএম তারেক কালাম, বিএনপি নেতা আজির উদ্দিন আহমদ, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি সুরমান আলী, জেলা মহিলা দলের সভাপতি সালেহা কবির শেপি, মহানগর শ্রমিক দলের সভাপতি ইউনুস মিয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফ ইকবাল নিহাল, বিএনপি নেতা বজলুর রহমান ফয়েজ, আব্দুল মালেক, আব্দুল লতিফ খান, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল, বিএনপি নেতা দিলোয়ার হোসেন জয়, হেলাল আহমদ, আজির উদ্দিন, জিলা মিয়া মেম্বার, ইলিয়াস আলী মেম্বার, কামরুজ্জামান দীপু, শামসুর রহমান শামীম, আব্দুর রহিম, আব্দুল মান্নান, রফিকুল ইসলাম, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা আমেনা বেগম রুমি, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, মহানগর শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক লিটন আহমদ চৌধুরী, জেলা মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মালেক ও ইসলাম উদ্দিন, যুবদল নেতা আখতার আহমদ, আশরাফ উদ্দিন ফরহাদ, ময়নুল ইসলাম মঞ্জু, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, যুবদল নেতা মিজানুর রহমান নেছার, লিটন আহমদ, কয়েস আহমদ, আলী আহমদ আলম, মকসুদুল করিম নোহেল, এনামুল হক শামীম, জেলা মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদিকা ফাহিমা আহমদ কুমকুম, বিএনপি নেতা আব্দুল আহাদ নুরুল ইসলাম, আকবর আলী, মহিলা দল নেত্রী মিলি বেগম, মনিজা বেগম, সালমা বেগম, হকার্স দল নেতা খোকন ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন নাদিম, ছাত্রদল নেতা আব্দুস সালাম টিপু, তানভির আহমদ চৌধুরী, মিনার হোসেন লিটন, জহুরুল ইসলাম রাসেল, হোসাইন আহমদ, আশরাফ উদ্দিন রাজিব, আলী আকবর রাজন, দুলাল রেজা, সদরুল ইসলাম লোকমান ও জুবায়ের আহমদ লিলু প্রমুখ।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত
আরও

ফখরুলের ভিডিও বার্তা

১২ ঘণ্টা, ৫৪ মিনিট আগে