ধর্ষণ: কারণ ও করণীয়

বণিক বার্তা প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:০৭

২০২০ সালে নতুন বছরে সবারই প্রত্যাশা ছিল উন্নয়ন, শান্তি ও নিরাপত্তা। কিন্তু বিধি বাম। বছরের শুরুতেই ঘটে যায় নির্মম হৃদয়বিদারক ঘটনা। ৫ জানুয়ারি রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী রাজধানীর শেওড়া এলাকায় বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার পথে ধর্ষণের শিকার হন। এ নিয়ে ছাত্রছাত্রীরা চরমভাবে বিক্ষুব্ধ।সবারই একটাই দাবি—ধর্ষক মজনুর ফাঁসি চাই।এটাকে কেবল ঘটনা হিসেবে দেখলেই হবে না। কেননা ২০১৯ সালে ঢাকা মহানগরের ৫০টি থানা এলাকায় ধর্ষণ ও গণধর্ষণের অভিযোগে প্রায় ৫০০ (৪৯৮) মামলা হয়েছে। এর মধ্যে গণধর্ষণের মামলার সংখ্যা ৩৭টি। এই যদি হয় পরিসংখ্যান, তাহলে ধর্ষণ, নারী নির্যাতন, নারী নিপীড়ন যে কী হারে বেড়ে চলছে, তা সহজেই অনুমেয়। এ থেকে আরো স্পষ্ট যে ধর্ষণ এখন আর কোনো অস্বাভাবিক ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা নয়; বরং এটি এখন মহামারী হয়ে গেছে। মানুষ প্রতি ক্ষণে নিরাপত্তাহীনতার আতঙ্কে অস্থির চিত্তে কাটাচ্ছে দিন আর রাত।বর্তমান পরিস্থিতিতে মানুষ দুটি আতঙ্কে সবচেয়ে বেশি ভুগছে—এর একটি হলো সড়কে হত্যা আর অন্যটি ধর্ষণ-গণধর্ষণ।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত
আরও

যেই লাউ সেই কদু

৪ ঘণ্টা, ৩২ মিনিট আগে

Lost decades in Rohingya camps

৬ ঘণ্টা, ৩৬ মিনিট আগে

For the health of our children

৭ ঘণ্টা, ২ মিনিট আগে

A rejection from the West

৭ ঘণ্টা, ২ মিনিট আগে

Saving the city of burnout

৭ ঘণ্টা, ৩৩ মিনিট আগে

Looking inside the RMG reality

১১ ঘণ্টা, ৩ মিনিট আগে