মোবাইল চুরি নিয়ে সৌম্যর বিয়েতে তুলকালাম

সমকাল প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:০২

জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সৌম্য সরকার। বুধবার রাত ১০টার দিকে অভিজাত খুলনা ক্লাবে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। ঘন্টা যেতে না যেতেই আনন্দঘন পরিবেশ রূপ নেয় বিষাদে। মোবাইল চুরিকে কেন্দ্র করে হইচই, হাতাহাতি এমনকি মারধরের শিকার হন সৌম্যের পরিবারের সদস্যরা। রাত ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত চলে এই অবস্থা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।সৌম্যর পরিবারের সদস্যরা জানান, সৌম্যর বাবা কিশোরী মোহন সরকার, বরযাত্রী শিল্পপতি দ্বীনবন্ধু মিত্র ও সৌম্যর বন্ধু অলিসহ সৌম্যর স্বজনদের সাতটি মোবাইল চুরি হয়। এ সময় সৌম্যর মেজো ভাই ইনকাম ট্যাক্সের ডেপুটি কমিশনার প্রনব কুমার সরকার খুলনা ক্লাবের কর্মচারীদের মোবাইল চুরির বিষয়ে অবহিত করেন এবং চোরদের ধরতে যান।  এ সময় চোরের পক্ষ হয়ে ক্লাবের কয়েকজন কর্মচারী ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। প্রনব ও অলিদের উপর ক্লাবের কর্মচারীরা দফায় দফায় হামলা চালান। এতে তারা আহত হন। প্রায় আধা ঘণ্টা থমকে যায় পুরো বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। তখন সাত পাকে ঘুরছিলেন বর। যে কারণে তিনি উঠে আসতে পারেননি।সৌম্য সরকারের মামা স্বদেশ কুমার সরকার বলেন, প্রচন্ত ভিড়ে গেট থেকে ঢোকার সময় দ্বীনবন্ধু মিত্রের মোবাইল চুরি হয়ে যায়। এর পর সৌম্যর বাবা, বন্ধু অলিসহ বড় যাত্রীদের সাতটি মোবাইল চুরি হয়। চোরদের হাতে নাতে ধরে ফেললে খুলনা ক্লাবের কর্মচারীরা আমাদের উপর হামলা করেন।তিনি আরও বলেন, এ ঘটনাটি খুলনা ক্লাব কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ প্রথমেই আমলে নিলে বরযাত্রী এসে সৌম্যের স্বজনদের মার খেতে হতো না।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত
আরও