ভারতে মেয়ের লাশের কফিনের সামনে বাবাকে পুলিশের লাথি

ঢাকা টাইমস প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৯:১১

ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যে ১৬ বছর বয়সী সন্ধ্যা রাণী নামের এক কিশোরী কলেজ হোস্টেলে আত্মহত্যা করে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তে কিশোরীর ময়নাতদন্তের জন্য ফ্রিজার বক্সে লাশ টেনে হাসপাতালের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল স্থানীয় পুলিশ। মেয়ের ময়নাতদন্ত ঠেকাতে ফ্রিজার বক্সের সামনে শুয়ে কান্নকাটি করতে থাকে সন্ধ্যার বাবা। মেয়ের বাবাকে সরাতে উপর্যুপরি লাথি মারতে থাকে পুলিশ সদস্যরা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, বুধবার ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ তামিলনাড়ুর রাজধানী হায়দরাবাদের পতনচেরুর একটি হাসপাতালে এমন হৃদয়বিদারক দৃশ্য দেখা যায়। এ ঘটনায় জড়িত পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহার করা হয়েছে। ফ্রিজার বক্সে করে যখন মেয়ের লাশ নিয়ে হাসপাতালের প্রবেশদ্বারে আসেন পুলিশের কয়েকজন সদস্য; তখন তাদের সামনে গিয়ে মাটিতে শুয়ে পড়েন সন্ধ্যার বাবা। এই বাবার প্রতি কোনও ধরনের সহমর্মিতা না দেখিয়ে পতনচেরুর নারায়না কলেজ হাসপাতালের রাস্তা পরিষ্কার করার জন্য উপর্যুপরি লাথি মারেন পুলিশ সদস্যরা। জানা যায়, নারায়না রেসিডেন্সিয়াল ক্যাম্পাসে উচ্চমাধ্যমিক প্রথম বর্ষে পড়তেন এই কিশোরী। মঙ্গলবার হোস্টেলের বাথরুম থেকে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
আরও