এক খুন লুকাতে ৯ খুন!

ইত্তেফাক প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২০, ১৭:৫৩

প্রথমে যখন লাশগুলো কুয়োও পাওয়া গিয়েছিল, তখন প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হয়েছিলো এটা গণআত্মহত্যা। পরে সামনে এলো আসল রহস্য। আর সেটা হলো- একটা খুন লুকোতে ৯ খুন। এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ভারতের তেলেঙ্গানার ওয়ারাঙ্গাল জেলায় গত সপ্তাহে ৯ জনের লাশ পাওয়া যায়। এতে সঞ্জয়কুমার যাদব নামে ২৪ বছরের এক যুবককে সোমবার গ্রেফতার করে পুলিশ। একই পরিবারের ছজন ও বিহারের দুজন এবং ত্রিপুরার একজনকে খুনের অভিযোগ তার বিরুদ্ধে।

লাশগুলো একটি কুয়ো থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের দাবি, গত মার্চে এক নারীর হত্যাকাণ্ড চাপা দিতেই এই খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে অভিযুক্ত যুবক। তিনি ঐ ৯ জনের খাবারে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দেন। তারপর তারা অচেতন হয়ে পড়লে লাশগুলো কুয়োয় ফেলে দেয়। ওয়ারাঙ্গাল পুলিশ কমিশনার ভি রবিন্দর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ৬ মার্চ করা এক নারীর হত্যাকাণ্ড চাপা দিতে ঐ যুবক এই খুনগুলো করে। অভিযুক্ত যুবক খুনের কথা স্বীকার করেছে। গত সপ্তাহে নিহত পরিবারের লাশগুলো উদ্ধার হয়।


তারা হলেন- মকসুদ, তার স্ত্রী, তাদের দুই পুত্র, কন্যা বুশরা ও তার ৩ বছরের পুত্র। সকলকেই হত্যা করেছে সঞ্জয়। পুলিশ জানানয়, নিহতের ৯ জনের মধ্যে সাতজনই একটি ব্যাগ কারখানায় কাজ করতেন। মকসুদ পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা ছিলেন। ২০ বছর আগে তিনি সেখান থেকে তেলেঙ্গানায় চলে আসেন। পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, তার পরিবার দুই কামরার বাড়িতে বাস করত। জানা যাচ্ছে, মকসুদের স্ত্রী প্রায়ই সঞ্জয় যাদবকে হুমকি দিতেন। তিনি নিখোঁজ ঐ নালরি বিষয়ে পুলিশকে জানাবেন বলে। বিহার থেকে আসা সঞ্জয় এরপরই খুনের পরিকল্পনা করা শুরু করে।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
আরও