‘মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে পৃষ্ঠপোষকতার খুব অভাব’

মানবজমিন প্রকাশিত: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

ক্লোজআপ ওয়ান সংগীত প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে গানের জগতে যাত্রা শুরু করেছিলেন নাসরিন আক্তার বিউটি। এই প্রতিযোগিতায় ফোক গান গেয়ে দর্শক-বিচারকদের তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। বিউটি দ্বিতীয় রানার আপ নির্বাচিত হন সেখানে। এরপর থেকে নিয়মিত গান করে যাচ্ছেন এ গায়িকা।  বেশ কিছু অ্যালবাম প্রকাশ করেন ধারাবাহিকভাবে। এসব অ্যালবাম থেকে অনেক গানই পায় শ্রোতাপ্রিয়তা। বিশেষ করে ফোক ও লালনের গানেই নিজেকে সফলভাবে মেলে ধরেন তিনি। সিনেমার গানেও কন্ঠ দিয়েছেন বিউটি। অ্যালবামের বাইরে ষ্টেজ শোতেও তার ব্যস্ততা বাড়তে থাকে। এখন ষ্টেজ শো নিয়েই সময় কাটছে তার। কি অবস্থা? দিনকাল কেমন কাটছে? উত্তরে বিউটি বলেন, বেশ ভালো। ঈদের পর কিছুদিন ছুটির মুডেই ছিলাম। এখন আবার ধীরে ধীরে কাজ শুরু করেছি। গান ও পরিবার নিয়েই আমার সময় কেটে যায়। এখন ব্যস্ততা কি নিয়ে? বিউটি বলেন, ব্যস্ততা মূলত শো নিয়ে।  শো এর সংখ্যা সামনে আরো বাড়বে। কারণ স্টেজের মৌসুম আসছে সামনে। তাছাড়া টিভি অনুষ্ঠানের শুটিংয়ের ব্যস্ততাও রয়েছে। নতুন গানের কি খবর? বিউটি বলেন, আমি সাম্প্রতিক সময়ে নতুন গান কম করেছি। তবে যেগুলো করেছি সেসব থেকে ভালো সাড়া মিলেছে। শ্রোতাদের কাছ থেকে সবসময় অভিযোগ শুনতে হয়, কেন নতুন গানে নিয়মিত হচ্ছি না। আমি কিন্তু গানের মধ্যেই আছি। সংখ্যায় কম হলেও কিছু নতুন গানের কাজ করা হয়েছে। এগুলো সামনেই প্রকাশ হবে। আশা করছি গানগুলো ভালো লাগবে সবার। সিনেমায় গান করা কি হচ্ছে? বিউটি বলেন, ভালো প্রস্তাব পেলেই গাইছি। সামনেও গাইবো যদি ভালো গান হয়। সব মিলিয়ে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? বিউটি উত্তরে বলেন, মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা আগের মতো নেই। আগে একটা অ্যালবামে ১০-১২টা গান করতাম। কিন্তু এখন গান বের হয় একটা করে। তাই হয়তো মনে হয় কম গান করা হচ্ছে। তাছাড়া আমি মনে করি মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে পৃষ্ঠপোষকতার খুব অভাব। আমি যখন শুরু করেছিলাম তখন ইন্ডাস্ট্রি মোটামুটি জমজমাট ছিল। তারও আগে আরো ভালো অবস্থা ছিল। কিন্তু দিন দিন অবস্থা খারাপের দিকে গেছে। তারমধ্যেও ইতিবাচক বিষয় হলো এখন ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। শিল্পীরা যে যার গান নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করতে পারছে। অনেকেই তা করছে। আমিও করছি। তবে আপাতত বানিজ্যিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য চ্যানেল করিনি। আমার গানগুলো যেন শ্রোতারা একই জায়গায় পান সেজন্যই চ্যানেলটি করা। এখন সব শিল্পীরই সিঙ্গেল প্রকাশ হচ্ছে। এ কারণে গানের সংখ্যা কিন্তু কমে এসেছে। শিল্পীরা এখন গান নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার সুযোগও কম পাচ্ছে। কারণ কোম্পানি থেকে একটি গান করলে সেই একটি গানই শ্রোতাপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে করতে হয়। সেদিক থেকে আমি বলবো, অ্যালবামই শিল্পীদের জন্য আশির্বাদ ছিল। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। সংসার কেমন চলছে? ছেলে কি গান গায় মায়ের সঙ্গে? বিউটি বলেন, সংসার বেশ ভালো চলছে। স্বামী ও একমাত্র ছেলে রায়াতকে নিয়ে আমার সংসার। আমার স্বামীর সহযোগিতা সব সময় পেয়ে এসেছি। শুরু থেকেই ও খুব ভালো বোঝে আমাকে। আর রায়াতকে নিয়ে এখন আমার সময় চলে যায়। ও এখন বড় হচ্ছে। আমার গানও গাইতে পারে। মাঝেমধ্যেই আমার গান শুনি ওর মুখে। ছেলের মুখে নিজের গান শুনলে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ি।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত
আরও