পাঁচ স্তম্ভ

রমজান শুরুর দিন জানা যাবে বুধবার

বুধবার সন্ধ্যায় হিজরি ১৪৩৯ সনের রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেলে বৃহস্পতিবার (১৭ মে) থেকে রমজান মাস গণনা শুরু হবে এবং মুসলমানরা রোজা রাখা শুরু করবেন।

হাসান আদিল ১৫ মে ২০১৮, ১৮:৪০

রমজান উপলক্ষে ট্রাম্পের শুভেচ্ছা

পবিত্র এই মাস পালনকারী যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত মুসলমানদের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে হোয়াইট হাউজের ওই বিবৃতিতে।

প্রিয় ডেস্ক ২৭ মে ২০১৭, ২১:২৩

স্বামী-স্ত্রী এক সাথে নামাজ পড়ার বিধান

স্ত্রী স্বামীর একতিদা করলে তা সহীহ হবে। স্ত্রী স্বামীর বরাবর হয়ে দাঁড়াবে না বরং একটু পিছনে দাঁড়াবে। [ফাতাওয়ায়ে দারুল উলুম ৩/৩৪]

মিরাজ রহমান ০২ অক্টোবর ২০১৬, ০৩:৩০

নামাজ : ব্যক্তিগত শুদ্ধির পরশ পাথর

আসল কথা হলো, যাবতীয় আদব-কায়দা ও শর্তাবলি পালন করে পূর্ণ ধ্যান-খেয়ালের সঙ্গে নামাজ পড়া হলে এ নামাজই আল্লাহ পাকের সঙ্গে ওই ব্যক্তির এক গভীর সম্পর্ক তৈরি করে দেয়। আল্লাহর সঙ্গে যার এ সম্পর্ক তৈরি হয়ে যায়, সে ধীরে ধীরে পাপের পথ পরিহার করে স্বচ্ছ জীবন গড়ে তুলবে না- এটা কোনোভাবেই সম্ভবপর ও বিশ্বাসযোগ্য নয়।

মিরাজ রহমান ২৮ আগস্ট ২০১৬, ০৩:৪৩

নামাজে ইচ্ছাপূর্বক ইমামের আগে মুক্তাদী উঠাবসা করলে কী হবে?

একজন মুসল্লীকে যখন ধীরে সুস্থে সালাতে উপস্থিত হওয়ার কথা বলা হয়েছে এবং তাড়াতাড়ি বা দ্রুত পায়ে নিষেধ করা হয়েছে , [সহীহ বুখারী, হাদীস নং ৬৩৬; মুসনাদে আহমদ, হাদীস নং ১০৯০০৬]

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ ১০ আগস্ট ২০১৬, ০৩:২৪

সালাতে অনর্থক কাজ ও বেশি বেশি নড়াচড়া না করা

রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সাজদার মধ্যে মাটি সমান করা যাবে কি-না জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেছিলেন, সালাত অবস্থায় তুমি কিছু মুছতে পারবে না, “একান্তই যদি করতে হয় তাহলে কংকরাদি একবার সমান করতে পারবে”। [সুনান আবু দাউদ, হাদীস নং ৯৪৬; সহীহুল জামে হাদীস নং ৭৪৫২]

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ ০৮ আগস্ট ২০১৬, ০২:১৯

নামাজে ইচ্ছাপূর্বক ইমামের আগে রুকু-সিজদাহ করলে কী হয়?

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন একটু বুড়িয়ে যান এবং তাঁর নড়াচড়ায় মন্থরতা দেখা দেয়, তখন তিনি তাঁর পিছনের মুক্তাদীদের এ বলে সতর্ক করে দেন যে, “হে লোকেরা! আমার দেহ ভারী হয়ে গেছে। সুতরাং তোমরা রুকু-সাজদায় আমার আগে চলে যেও না”। [বায়হাকী; সিলসিলা সহীহাহ, হাদীস নং ১৭২৫]

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ ২৭ জুলাই ২০১৬, ০৪:১৬

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম

খুতবার সময় কথাবার্তা বলা, চলাফেলা করা, নামাজ পড়া সম্পূর্ণরূপে হারাম। কারও ঈদের নামাজ ছুটে গেলে কিংবা যে কোনো কারণে নামাজ নষ্ট হয়ে গেলে পুনরায় একাকী তা আদায় বা কাজা করার কোনো সুযোগ নেই। তবে চার বা তার অধিক লোকের ঈদের নামাজ ছুটে গেলে তাদের জন্য ঈদের নামাজ পড়ে নেয়া ওয়াজিব।

ফয়জুল আল আমীন ০৬ জুলাই ২০১৬, ০৬:৩২

কেয়ামতের দিন আরশের নিচে ছায়া পাবেন যারা!

আবু সাইদ খুদরি সূত্রে, রাসুল সা. আরো বলেন, কোনো মুসলমান অপর কোনো বস্ত্রহীনকে কাপড় পরিধান করাবে, আল্লাহ তাকে জান্নাতের সবুজ পোশাক পরাবেন। কোনো মুসলমান অপর ক্ষুধার্তকে আহার করাবে, আল্লাহ তাকে জান্নাতের সুস্বাদু ফল খাওয়াবেন, কোনো মুসলমান অপরের তৃঞ্চায় পানি পান করাবে আল্লাহ তাকে জান্নাতের সুঘ্রাণযুক্ত পানি খাওয়াবেন। (আবু দাউদ, ১৬৮২)

মুফতি হুমায়ুন আইয়ুব ০৪ জুলাই ২০১৬, ০৫:৫৪

সদকাতুল ফিতর দিতে হয় কেন?

নবী করিম (সা.) সদকাতুল ফিতর এ জন্য নির্ধারিত করেছেন যাতে ভুলক্রমে অনর্থক কথাবার্তা ও গুনাহ থেকে রোজা পবিত্র হয় এবং মিসকিনদের খাওয়া-পরার ব্যবস্থা হয়। হাদিস শরিফে বর্ণিত আছে, ‘সদকাতুল ফিতর দ্বারা রোজা পালনের সকল দোষ-ত্রুটি দূরীভূত হয়, গরিবের পানাহারের ব্যবস্থা হয়।’ (আবু দাউদ)

ফয়জুল আল আমীন ০৩ জুলাই ২০১৬, ০২:২১

loading ...