ছবি সংগৃহীত

আইন মন্ত্রণালয়ে গণজাগরণ মঞ্চের স্মারকলিপি

মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের রিভিউ পিটিশন, যুদ্ধাপরাধের বিচারে রাষ্ট্রপতির ক্ষমার বিধান রহিতকরণ ও জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি পেশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৪, ১৯:৪৮ আপডেট: ১২ মে ২০১৮, ০৪:৪৯
প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৪, ১৯:৪৮ আপডেট: ১২ মে ২০১৮, ০৪:৪৯


ছবি সংগৃহীত
(ইত্তেফাক) মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের রিভিউ পিটিশন, যুদ্ধাপরাধের বিচারে রাষ্ট্রপতির ক্ষমার বিধান রহিতকরণ ও জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি পেশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। গতকাল রবিবার দুপুরে ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে মঞ্চের ৫ সদস্যের প্রতিনিধিদল আইন মন্ত্রণালয়ে গিয়ে এ স্মারকলিপি পেশ করেন। পরে নিজ কক্ষে এক ব্রিফিংয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডিতদের রাষ্ট্রপতি যেন ক্ষমা না করতে পারেন এমন বিধান তৈরি এবং মানবতাবিরোধী অপরাধে সংগঠন হিসেবে জামায়াতের বিচার করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। গতকাল দুপুর ১টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ থেকে আইন মন্ত্রণালয় ?অভিমুখে গণজাগরণ মঞ্চ ‘গণপদযাত্রা’ বের করে। মিছিলটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোয়েল চত্বর এলাকায় পুলিশি বাঁধার মুখে পড়ে। সেখানে একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে ৫ সদস্যের প্রতিনিধিদল আইন মন্ত্রণালয়ে যায়। স্মারকলিপি জমা দিয়ে প্রতিনিধিদল ফিরে না আসা পর্যন্ত দুপুর সোয়া ২টা পর্যন্ত অন্য নেতা-কর্মীরা ঐ স্থানেই অবস্থান করেন। সচিবালয়ের একটি ফটকে মন্ত্রীর পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ হজিরুল হক। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, রাষ্ট্রপক্ষ সুপ্রিম কোর্ট অব বাংলাদেশ (আপীল বিভাগ) রুলস ১৯৮৮-এর অর্ডার ২৬ অনুযায়ী রিভিউ করতে পারে। সংবিধানের ১০৫ অনুচ্ছেদ রাষ্ট্রপক্ষকে সেই অধিকার নিশ্চিত করেছে। যুদ্ধাপরাধীদের জন্য সংবিধানের ৪৭ক(২) প্রযোজ্য হলেও রাষ্ট্রপক্ষের জন্যতা প্রযোজ্য হবে না। এদিকে মঞ্চের স্মারকলিপি পেশের পর নিজ অফিসে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, যুদ্ধাপরাধের দায়ে ব্যক্তির পাশাপাশি দল হিসেবে জামায়াতের বিচারের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইন (আইসিটি)’১৯৭৩ এর সংশোধনী মন্ত্রিসভার আগামী ৩ নভেম্বরের বৈঠকে উঠছে। ওই বৈঠকে সংশোধনীটির খসড়া মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। সৌজন্যে : ইত্তেফাক

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...