ছবি সংগৃহীত

সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য রাজনীতি হতে পারে না: ওবায়দুল কাদের

কক্সবাজার-টেকনাফের মেরীন ড্রাইভ সড়কের উখিয়ায় মনখালী সেতু উদ্বোধনকালে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য রাজনীতি হতে পারে না’।

priyo.com
লেখক
প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০১৫, ০৫:০১ আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:০২
প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০১৫, ০৫:০১ আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:০২


ছবি সংগৃহীত
(প্রিয়.কম) কক্সবাজার-টেকনাফের মেরীন ড্রাইভ সড়কের উখিয়ায় মনখালী সেতু উদ্বোধনকালে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য রাজনীতি হতে পারে না’। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় ইনানী মেরিন ড্রাইভ সড়কে মনখালী এলাকায় সেতুটি মন্ত্রী উদ্বোধন করেন। ১৬ ইসিবি সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বাস্তবায়িত ২২ কোটি ৫৭ লক্ষ টাকা ব্যয় বরাদ্ধে ১১৮ মিটার দীর্ঘ উখিয়ার মনখালী সেতুটি নির্মিত হয়। তিনি বলেন, ‘আমরা দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য রাজনীতি করি। যেদিন গণমানুষের কল্যাণ বয়ে নিয়ে আসবে সেদিনই রাজনীতির চর্চ্চা হয়েছে মনে করবো। মানুষ মানুষের কল্যাণেই কাজ করে। আপনারা যারা অপরাজনীতির আদলে রাজনীতির স্বীকৃতি চান তারা সুশীল হতে অভ্যস্ত হউন। না হয় জনগণ আপনাদেরকে এ রাজনীতির মাঠে ঠাই দেবে না।’ তিনি আরও বলেন, মেরিন ড্রাইভ সড়কে এ সেতু নির্মিত হওয়ার ফলে এলাকার ব্যবসা বানিজ্যের প্রসারতাসহ অর্থনৈতিক চিত্র পাল্টে দিতে পারে। সরকার ইনানীকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এ অঞ্চলকে পর্যটন স্পট হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে বলেও তিনি জানান। তিনি বলেন, সরকার দেশের বৃহত্তম পর্যটন এলাকা হিসেবে উপকূলীয় অঞ্চলকে চিহ্নিত করে ইনানীকে এক্সক্লুসিভ ট্যুরিজম স্পট হিসেবে গড়ে তুলে দেশি-বিদেশী পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ব্যাপক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। তাই কক্সবাজার-টেকনাফ পর্যন্ত মেরিন ড্রাইভের পশ্চিম পার্শ্বে যে সমস্ত অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে তা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব উচ্ছেদ করে দেয়ার জন্য জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেন। এ সময় মন্ত্রী ওবাইদুল কাদেরের সাথে ১৬ ইসিবির প্রকল্প পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আব্দুল ওয়াহাব, সিনিয়র প্রকল্প পরিচাল লেঃ কর্ণেল মনোয়ারুল ইসলাম সরকার, ১৬ ইসিবির উপ-অধিনায়ক ও প্রকল্প কর্মকর্তা মেজর আশিকুজ্জামান, উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি, কক্সবাজার সদর আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ রুহুল আমিন, পুলিশ সুপার শ্যামল কান্তি নাথ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবু বক্কর, উখিয়া থানার ওসি জহিরুল ইসলাম খান।